তুরাগের আওয়ামী রাজনীতি

দ্বন্দ্ব কাটাতে চান দুই পক্ষই

প্রকাশ : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানী তুরাগ থানার আওয়ামী লীগে একাধিক গ্রুপ রয়েছে, এদের মধ্যেকার দ্বন্দ্ব থাকলেও সেই কোন্দল কখনো প্রকাশ্যে আসেনি, ব্যক্তিগত কাদা ছোড়াছুড়িকে কখনোই প্রশয় দেননি নেতারা। এরপরও সিনিয়র এক জনপ্রতিনিধির হস্তক্ষেপে পরিবেশ এখন অনেকটা শান্ত। গত কিছু দিন থেকেই একটি জাতীয় দৈনিকের কিছু সংবাদ নিয়ে প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় সংশ্লিষ্ট এলাকার একাধিক রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে।

আলাপকালে প্রতিবেদককে তারা বলেন, কে বা কারা বেশকিছু ব্যক্তিকে কেন্দ্র করে কয়েকটি উদ্দেশ্যমূলক প্রতিবেদন প্রকাশের জন্য যেসব তথ্য উপাত্ত দিয়েছে, তা নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগে এক ধরনের অস্বস্তি তৈরি হয়েছে। বিশেষ করে তুরাগ থানা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সাদেকুর রহমান, যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক নিত্যচন্দ্র ঘোষ ও একই থানার যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন নাসিমকে নিয়ে যা লেখা হয়েছে এ ব্যাপারে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা বলেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি সাদেক এলাকার ধনাঢ্য পরিবারের সন্তান। তার বাবা এবং পরিবারের সবাই উপার্জনক্ষম।

তাকে জড়িয়ে মিশন ও দর্পন গ্রুপের জমি কেনা বেচার সংশ্লিষ্টতা নিয়ে যা লেখা হয়েছে তার কোনো ভিত্তি নেই বলে তুরাগের একাধিক নেতা জানিয়েছেন। এ বিষয়ে সাদেক বলেন, ‘আমি একজন প্রথম শ্রেণির ঠিকাদার। গত বেশ কয়েক বছরে শত শত কোটি টাকার কাজ করেছি। নিজের ব্যবসা এবং রাজনীতির বাহিরে অন্য কোনো বিষয়ে আমার কোনো মনোযোগ নেই বা সেগুলোতে নিজেকে জড়ানোর মতো কোনো আকর্ষণও আমার নেই। মানুষের কল্যাণের জন্য রাজনীতি করি।

তিনি বলেন, প্রতিবেদনে আমাকে নিয়ে যা লেখা হয়েছে সেগুলো উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ধ্বংসের একটি চক্রান্ত ছাড়া আর কিছু নয়। রাজনীতি করতে হলে প্রতিযোগিতা থাকবে এটা মেনেই রাজনীতি করি, আর রাজনীতিকে রাজনীতি দিয়েই মোকাবিলা করা উচিত। কোনো নোংরা খেলা রাজনীতির অংশ কখনোই হতে পারে না।

এ বিষয়ে স্থানীয় একজন কাউন্সিলর নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, কাদা ছোড়াছুড়ির রাজনীতি সবাইকে পরিহার করতে হবে। নেতা হতে চাইলে ভালো কাজ দিয়েই সামনে এগোতে হবে। অল্প কিছু দিন এখানে ওয়ার্ডগুলোতে কাউন্সিলর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। যারা রাজনীতি করে তারা সবার জনগণের কাছে যাওয়ার অধিকার আছে। মানুষের কাছে গিয়েই একমাত্র নেতা হওয়া যায়।

 

"