জাবিতে আলোচনায় বসবেন আন্দোলনকারীরা

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

জাবি প্রতিনিধি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) চলমান উন্নয়ন প্রকল্পে অপরিকল্পনা ও দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তিন দফা দাবিতে চলা টানা তৃতীয় দিনের অবরোধের পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে শর্তসাপেক্ষে আলোচনায় বসতে সম্মত হয়েছেন আন্দোলনকারীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে আন্দোলনকারী ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে ঘণ্টাব্যাপী আলোচনার পর উভয়পক্ষ আলোচনায় বসতে রাজি হয়। তবে এরই মধ্যে আগামী রোববার বিক্ষোভ মিছিলের ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনকারীরা।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ও পুরাতন প্রশাসনিক ভবন অবরোধ করে রাখেন আন্দোলনকারীরা। এতে স্থবির হয়ে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাফতরিক কার্যক্রম। অবরোধ চলাকালে দুপুরে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলতে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম পুরাতন প্রশাসনিক ভবনের সামনে আসেন। এ সময় দুই উপ-উপাচার্য, কোষাধ্যক্ষ, রেজিস্ট্রারসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে আন্দোলনরত বাংলাদেশ সাধারণ সম্পাদক জাবি শাখার আহ্বায়ক শাকিল উজ্জামান বলেন, ‘আমরা উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনায় বসব। বৃহস্পতিবার রাতে আমাদের শিক্ষকদের সঙ্গে আলোচনা করে কখন আলোচনায় বসব, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

গত মঙ্গলবার ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’ ব্যানারে তিনটি ছাত্র হল অন্যত্র স্থানান্তর করে নির্মাণ, মেগা প্রজেক্টের দুর্নীতির বিচার বিভাগীয় তদন্ত, টেন্ডারের শিডিউল ছিনতাইকারীদের শাস্তি ও মাস্টারপ্ল্যান পুনর্বিন্যাস করার দাবিতে দুই প্রশাসনিক ভবন অবরোধ করেন আন্দোলনকারীরা। এ অবরোধে বাম, বিএনপি ও আওয়ামীপন্থি শিক্ষকদের একটি অংশসহ জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোট এবং বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, ছাত্র ইউনিয়ন ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের জাবি শাখার নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

এদিকে চলমান মেগা প্রকল্পে কেন্দ্রীয় ও শাখা ছাত্রলীগকে জড়িয়ে যে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে, তা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন দাবি করেছে শাখা ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার বিকালে শাখা ছাত্রলীগের উপদফতর সম্পাদক এম মাইনুল হোসাইন স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ দাবি করা হয়।

 

 

"