বগুড়ায় সন্তানসহ ধর্ষিতা মাকে অপহরণ

প্রকাশ : ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় কোলের সন্তানসহ এক কিশোরী মাকে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে। গত শুক্রবার অপহৃত কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে ধুনট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী উপজেলার কৈয়াগাড়ি গ্রামে আব্দুর রশিদ মন্ডলের বাড়ি থেকে সপ্তম শ্রেণিতে লেখাপড়া করত। আবদুর রশিদ এই কিশোরীর নানা। বিয়ের প্রলোভনে একই এলাকার রঘুনাথপুর গ্রামের বকুল হোসেন এ কিশোরীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে। ২০১৮ সালের ১৫ এপ্রিল বিকালে বকুল হোসেন মেয়েটির ঘরে ঢুকে ধর্ষণের সময় ধরে ফেলে নানা আব্দুর রশিদ। ঘটনাটি প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে একই সময় নানা আব্দুর রশিদ মন্ডলও নাতনিকে ধর্ষণ করে।

ধর্ষণে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হলে তার বাবা বাদী হয়ে ২০১৮ সালের ৩ অক্টোবর বগুড়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন। ওই মামলায় মেয়েটির নানা রশিদ মন্ডল ও লম্পট বকুল হোসেনকে আসামি করা হয়। এ অবস্থায় ধর্ষণের শিকার কিশোরী স্কুলছাত্রী গত ১ জানুয়ারি বাবাবাড়িতে ছেলেসন্তানের জন্ম দেয়। মামলার আসামি বকুল হোসেন ও রশিদ মন্ডল বর্তমানে বগুড়া কারাগারে আটক রয়েছেন।

এদিকে সন্তান প্রসবের পর লোকলজ্জায় বাড়ি ছেড়ে মেয়েটি তার দাদির সঙ্গে উপজেলার সোনাহাটা বাজার এলাকার একটি বাসায় ভাড়া থাকত। এ অবস্থায় ১৫ আগস্ট দুপুরে সন্তানসহ ওই কিশোরী মাকে সোনাহাটা বাসা থেকে অপহরণ করেছে ধর্ষণ মামলার আসামিপক্ষের লোকজন। এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন। ওই অভিযোগে ধর্ষিতা মেয়েটির তালাকপ্রাপ্ত মা দেলোয়ারা খাতুনসহ ধর্ষণ মামলার আসামিপক্ষের পাঁচজনের নাম রয়েছে।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, প্রাথমিকভাবে তদন্ত করে মেয়েটিকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। মেয়ের বাবার অভিযোগটি থানায় সাধারণ ডায়েরি হিসেবে রেকর্ড করে অপহৃতকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।

 

"