বাম জোটের ঢিলেঢালা হরতাল

সমর্থন দিয়েও মাঠে ছিল না বিএনপি

প্রকাশ : ০৮ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বাম গণতান্ত্রিক জোট ও বাম ঐক্যফ্রন্টের হরতালে ঢিলেঢালা ভাব দেখা গেছে রাজধানীসহ সারা দেশে। হরতালে জনজীবন ছিল স্বাভাবিক। প্রভাব পড়েনি যাতায়াত ব্যবস্থায়। প্রতিদিনের মতোই ছিল সড়কের চিত্র। এদিকে হরতালে সমর্থন দিলেও মাঠে ছিল না বিএনপির কোনো নেতাকর্মী।

ঢাকা : সকাল ৭টার পর থেকে পুরানা পল্টন মোড়ে হরতালের সমর্থনে অবস্থান নেন জোটের নেতাকর্মীরা। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে তারা গাড়ি চলাচলে বাধা দিতে শুরু করেন। এ সময় বিপ্লবী সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের দফতর সম্পাদক হজরত আলীকে আটক করে পুলিশ। সেখানে অবস্থানরত জোটের নেতাকর্মীদের প্রতিবাদের মুখে আধঘণ্টা পর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ ছাড়া সকাল ৭টায় প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা টিএসসি থেকে মিছিল নিয়ে সায়েন্স ল্যাবরেটরি ঘুরে শাহবাগ মোড় অবস্থান নেন। তারা সড়কে বসে পড়ে যান চলাচল বন্ধ করে দেন। ফলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, সায়েন্স ল্যাব ও প্রেস ক্লাব মোড় থেকে আসা যানবাহনগুলো আটকে যায়। শুধু বাংলামোটরের দিক থেকে প্রেস ক্লাবের দিকে যাওয়া সড়কে যানবাহন চলে। রাজধানীর প্রেস ক্লাব, পল্টনসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকে সড়কে যানবাহন চলছে স্বাভাবিক দিনের মতোই।

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামে শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে। চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। নগরীর নিউমার্কেট মোড়ে জোটের পক্ষ থেকে সড়ক অবরোধের চেষ্টা করলে পুলিশ নেতাকর্মীদের সরিয়ে দেয়। এদিকে হরতাল চলাকালে নগরীতে গণপরিবহন ও পণ্যবাহী পরিবহন চলাচল স্বাভাবিক ছিল। দোকানপাট, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালতে স্বাভাবিক কাজকর্ম হয়েছে। দূরপাল্লার যানবাহনও স্বাভাবিকভাবেই আসা-যাওয়া করেছে।

সিলেট : সকালে হরতাল শুরুর পর নগরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, যান চলাচল অন্যান্য দিনের তুলনায় কিছুটা কম। হরতালের সমর্থনে মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতাকর্মীরা।

বরিশাল : হরতালে বরিশালে নগরে তেমন প্রভাব পড়েনি। সকাল থেকে নগরে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতাকর্মীরা।

গাইবান্ধা : বেলা ১১টা পর্যন্ত শহরের কিছু এলাকায় দোকানপাট বন্ধ ছিল। যানবাহন চলাচল করলেও তা অন্যান্য দিনের চেয়ে অপেক্ষাকৃত কম ছিল।

বগুড়া : হরতালে বগুড়ার জনজীবনে প্রভাব পড়েনি। ঢাকাসহ সকাল থেকেই দূরপাল্লার সব রুটে যান চলাচল করেছে। বাসসহ, ট্রাক, পিকআপ, অটোরিকশা চলাচল করেছে।

শহরের আন্তজেলা কোচ টার্মিনাল ও চারমাথা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে যাত্রীবাহী বাস ছেড়েছে নিয়মিত।

 

"