ধর্ষণের পর পুড়িয়ে হত্যা

কুমিল্লায় দুজনের যাবজ্জীবন

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৯, ০০:০০

কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লায় ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বা এক তরুণীকে কেরোসিন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগে তালেব হোসেন নামে এক ধর্ষককে ডাবল যাবজ্জীবন কারাদ- এবং অপর এক মহিলাকে যাবজ্জীবন ও অর্থদ-ের আদেশ দিয়েছেন আদালত। কুমিল্লার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক এম এ আউয়াল গতকাল সোমবার দুপুরে আসামিদের উপস্থিতিতে এ আদেশ দেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার মাতাইনকোট গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে তালেব হোসেন একই গ্রামের সেলিম মিয়ার মেয়ে নিলুফা আক্তারকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। একপর্যায়ে নিলুফা আক্তার অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। এ সময় তালেবকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিতে থাকে। তালেব টালবাহানা করে সময়ক্ষেপণ করে। ২০১১ সালের ২৩ জানুয়ারি রাতে একই গ্রামের আবদুল রহমানের স্ত্রী জোসনা বেগমকে দিয়ে নিলুফাকে ঘর থেকে ডেকে আনে। এ সময় জোসনা নিলুফার মুখ চেপে ধরে এবং তালেব কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ৩১ জানুয়ারি চিকিৎসাধীন সে মারা যায়। এ ঘটনায় তার বাবা সেলিম মিয়া বাদী হয়ে তালেব হোসেন ও জোসনা বেগমকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

পুলিশ তদন্ত শেষে ওই বছরের ১৭ এপ্রিল অভিযুক্ত দুজনের নামে চার্জশিট দেয়। এ মামলায় ১৮ সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়।

 

"