মমতাকে এক হাত নিলেন রাহুল

প্রকাশ : ১১ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

কলকাতা প্রতিনিধি

কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ক্ষেপেছেন। তিনি একহাত নিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। রাহুলের ভাষ্য, কংগ্রেস কখনো বিজেপির সঙ্গে জোট বাধেনি। কিন্তু মমতাজি করেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলছেন, কংগ্রেস নাকি বিজেপির বিরুদ্ধে লড়ছে না। তাহলে চৌকিদারকে চোর বলল কে? রাফায়েল ইস্যু সামনে আনল কে? কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে রাফায়েল মামলার তদন্ত হবে। যে চুরি করেছে, তার শাস্তি হবেই। কংগ্রেস সভাপতির সাফ কথা তিনি, মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেবেন না। গতকাল বুধবার দিনাজপুর জিলায় প্রচারে এমন সব কথাই বললেন রাহুল গান্ধী। ওইসব প্রচারে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ছিলেন।

সভায় কংগ্রেস বিজেপি ঘনিষ্ঠ রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ বা আরএসএসের সাহায্য নিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন মমতা। আর তারপরে রীতিমতো তোপ দেগেছেন রাহুল গান্ধী। বলেছেন, ৭০ বছরে কংগ্রেস কখনো বিজেপির সঙ্গে কোথাও জোট করেছেন?

রাহুল বলেন, ২ কোটি চাকরি দেওয়ার কথা বলবেন না, দেশে ২২ লাখ শূন্যপদ আছে, পঞ্চায়েতে ১০ লাখ যুবক চাকরি পেতে পারেন। সেই চাকরি দেওয়া হবে। এর পরই বলেছেন, নরেন্দ্র মোদির মতো, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, গরিব কৃষকের ঋণ মুওকুফের কোনো চেষ্টা করেননি, যা কংগ্রেস করে দেখিয়েছে রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশে। কোনো কৃষককে ঋণের জন্য জেলে ঢোকানো হবে না।

রায়গঞ্জের করণদিঘিতে ভোট প্রচারে নরেন্দ্র মোদিকেই বেশি আক্রমণ করেছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। তার কথায়, আমরা এতদিন চোর বলতাম। এবার সুপ্রিম কোর্টও বলছেন, চৌকিদার চোর হ্যায়। সেইসঙ্গে হুশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেছেন, কথা দিচ্ছি, ক্ষমতায় এসে দুর্নীতিবাজদের সবাইকে জেলে ঢোকাব। কেউ ছাড় পাবেন না। সেইসঙ্গে রাহুল গান্ধী জানিয়ে দিয়েছেন, শিল্পপতি অনিল আম্বানিদের থেকে টাকা নিয়ে সেই টাকা সাধারণ গরিব মানুষের মধ্যে বণ্টন করতে চান তিনি। তবে শুধু প্রতিশ্রুতি তিনি দিতে চান না, বরং বাস্তব মেনেই কাজ করতে চাই। তাই তার কথায়, মিথ্যা প্রতিশ্রুত দেব না। জানি গরিব মানুষকে ৭২ হাজার টাকা করে দিতে পারব। তাই বলেছি, দেব। বিজেপির মতো ১৫ লাখ টাকার মিথ্যা কথা বলিনি।

এর আগে, সকালে, কেরলের ওয়েনাডের পর নিজের পুরোনো নির্বাচনী কেন্দ্র উত্তরপ্রদেশের অমেঠিতে দ্বিতীয় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন রাহুল। মনোনয়নের আগে অমেঠির সদর শহর গৌরীগঞ্জে রোডশো করেছেন কংগ্রেস সভাপতি। সঙ্গে ছিলেন মা সোনিয়া। ছেলে রায়হান এবং মেয়ে মিরায়াকে নিয়ে রোডশোতে ছিলেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও। মনোনয়ন ঘিরে কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে ছিল ব্যাপক উন্মাদনা।

২০০৪ সাল থেকে অমেঠিতে টানা তিনবারের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন রাহুল গান্ধী। এবারও যে এই কেন্দ্রে প্রার্থী হবেন রাহুল, তাতে কোনো চমক ছিল না। যেটা ছিল, ওয়েনাড কেন্দ্রে তার প্রার্থী হওয়া। বুধবার কার্যত গোটা পরিবারই মনোনয়ন পর্বে হাজির ছিলেন। গৌরীগঞ্জে হুড খোলা গাড়িতে রাহুল-প্রিয়াঙ্কার রোডশোতে শুরু থেকেই ছিল ব্যাপক জনসমাগম। রাস্তার দুই পাশে বাড়ি থেকেও ফুল ছুড়ে রাহুল-প্রিয়াঙ্কাকে শুভেচ্ছা-অভিনন্দন জানিয়েছে বহু মানুষ।

 

"