মিরপুরে বাড়ির ছাদ থেকে পড়ে স্কুলশিক্ষার্থীর মৃত্যু

প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রতিদিনের মতো গতকালও সকালে স্কুলে যাওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছিল কাজী অনিক (১৫)। মায়ের সঙ্গে নাশতাও করে সে। স্কুলে যাওয়ার আগে মা বাথরুমে যান। এরই মধ্যে আশপাশের লোকজনের হইচই শুনতে পান মা শামসুন্নাহার। তিনি ছুটে গিয়ে বাড়ির সামনের রাস্তায় মানুষের জটলা দেখতে পান। ভিড় ঠেলে দেখতে পান, তার আদরের সন্তান রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। কীভাবে কাজী অনিকের মৃত্যু হয়েছেÑ তা নিয়ে পরিবারের কাছে স্পষ্ট কোনো ধারণা নেই।

তবে পুলিশ বলছে, কাজী অনিক মানসিকভাবে অসুস্থ ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, বাড়ির ছাদ থেকে পড়ে গিয়ে অনিক মারা গেছে। তবে সে নিজে ঝাঁপ দিয়েছে, নাকি কেউ তাকে ফেলে দিয়েছেÑ এ ব্যাপারে নিশ্চিত কোনো তথ্য মেলেনি। কাজী আনিক মিরপুরের মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র। গতকাল সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ৮৩৭, পশ্চিম মনিপুরের বাড়ির সামনে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

কাজী অনিকের মামা কামরুল হুদা জানান, অনিকরা তিন ভাই। বড় ভাই কাজী রাসেল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। মেজো ভাই কাজী শাহেদ নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী। তারা যমজ। কাজী অনিকের বাবা মজিবুর রহমান ইতালি প্রবাসী। পশ্চিম মনিপুরের ছয়তলা বাড়ির দোতলার ফ্ল্যাটে মা ও দুই ভাইয়ের সঙ্গে অনিক থাকত। অনিক মানসিকভাবে অসুস্থ ছিল। এ কারণে তাকে সব সময় চোখে চোখে রাখা হতো। সকালে নাশতা শেষে তার মা তাকে স্কুলে নিয়ে যাওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছিল। এরই মধ্যে হয়তো অনিক বাসা থেকে বেরিয়ে সামনের রাস্তায় যায়। সেখানেই দুর্ঘটনার শিকার হয়। তবে আশপাশের লোকজন তাদের জানিয়েছেন, অনিক বাড়ির ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়েছে।

মিরপুর থানার ওসি দাদন ফকির বলেন, প্রত্যক্ষদর্শীদের জবানবন্দি অনুযায়ী পুলিশ ধারণা করছে, অনিক বাড়ির ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়েছে। তবে এটি আত্মহত্যা নাকি কেউ তাকে ফেলে দিয়েছে, সে বিষয়ে পরিবার অভিযোগ দিলে পুলিশ তদন্ত করবে।

 

"