আগুনে পুড়িয়ে স্ত্রীকে হত্যাচেষ্টা

প্রকাশ : ১০ মার্চ ২০১৯, ০০:০০

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

তাস খেলায় বাধা দিতে গিয়ে স্বামীর দেওয়া আগুনে দগ্ধ হলেন গৃহবধূ। এখন তিনি সাতক্ষীরা জেলার তালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন। তার শরীরের ২৫ শতাংশ পুড়ে গেছে।

জানা গেছে, স্বামী আমানউল্লাহ তাস খেলছিলেন তার সঙ্গীদের নিয়ে। এতে বাধা দেন স্ত্রী সোনিয়া খাতুন। পরে রাত ১২টার দিকে ঘুমন্ত স্ত্রীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দেয় পাষন্ড স্বামী।

দগ্ধ সোনিয়া খাতুনের বাবা তালার তেঁতুলিয়া গ্রামের আমিনুর শেখ জানান, সোনিয়াকে নিয়ে স্বামী আমানউল্লাহ যশোর জেলার চৌগাছা থানার ঐশী মল্লিক ইটভাটায় শ্রমিকের কাজ করতেন। গত (৫ মার্চ) মঙ্গলবার রাতে আমার মেয়ের গায়ে কেরোসিন ঢেলে পুড়িয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন দগ্ধ সোনিয়া খাতুন বলেন, আমি তাস খেলতে নিষেধ করায় রাতে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। এদিকে ঘটনার বিষয়ে অভিযুক্ত আমানউল্লাহ্ ও তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও ব্যবহৃত ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

তালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রাজীব সরদার জানান, সোনিয়ার পিঠ, হাত ও বুকের স্পর্শকাতর অংশ মারাত্মকভাবে পুড়ে ক্ষত হয়েছে। অসহায় পরিবার হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না। তবে এখানেই সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। চৌগাছা থানার ওসি রিফাত খান রাজীব বলেন, এ বিষয়ে এখনো কোনো অভিযোগ পায়নি।

 

"