সিলেটে আলাল হত্যা

২১ বছর ধরে ছেলে হত্যার বিচারের অপেক্ষায় মা!

প্রকাশ : ১১ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০

সিলেট প্রতিনিধি

সিলেটে স্কুলছাত্র আলাল হত্যা মামলার যুক্তিতর্ক আজ। মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. মফিজুর রহমান ভূইঞা যুক্তিতর্কের জন্য আজ রোববার এ দিন ধার্য করেন। আলাল সিলেট সদর উপজেলার কান্দিগাঁও ইউনিয়নের ঘোপাল গ্রামের মৃত আব্দুল বারীর ছেলে। সে ঘোপাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। এদিকে ২১ বছর পর ছেলের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেখা যাওয়ার আশায় প্রহর গুনছেন আলালের মা ও স্বজনরা। তবে বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এমাদুল্লাহ শহিদুল জানিয়েছেন। এবার আর রায় পেছানো বা কালক্ষেপণের খুব একটা সুযোগ নেই। স্বাভাবিক নিয়মে আদালত রায়ের জন্য পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করবেন।

পূর্বশত্রুতার জেরে ১৯৯৭ সালের ১৯ ডিসেম্বর প্রতিপক্ষের হামলায় নির্মমভাবে নিহত হয় স্কুলছাত্র আলাল। বহুল আলোচিত এ মামলার ২৯ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জন সাক্ষী দ্রুততম সময়ের মধ্যে সাক্ষ্য দিলেও সরকারি সাক্ষীর জন্য আটকে থাকে মামলার কার্যক্রম। এরপর কেটে যায় ১৮ বছর। সর্বশেষ গত বছরের ২১ মার্চ সরকারি চাকরি থেকে অবসরে যাওয়া মামলার অন্যতম সাক্ষী তদন্ত কর্মকর্তা দেওয়ান গোলাম সারওয়ার আদলাতে এসে সাক্ষ্য দেন। এরপর আরেক তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের তৎকালীন তদন্ত কর্মকর্তা মিজানুর রহমানের সাক্ষীর জন্য মামলায় আবারও ধীরগতি চলে আসে।

আসামিপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মিজানুর রহমানের সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ওয়ারেন্ট ইস্যু করেন আদালত। কয়েক দফা মামলা পেছানোর পর আদালতে হাজির হয়ে সাক্ষ্য দেন মিজানুর।

আলালের মা সারি বেগম বলেন, ‘আমার ছেলেকে ওয়াজ মাহফিল থেকে ডেকে এনে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে আলী আশরাফ ওরফে শামীম ও তার সহযোগীরা। ছেলে হারানোর শোক সইতে না পেরে ইতোমধ্যেই মারা গেছেন তার বাবা। আদালতের কাছে আমার আবেদন সব খুনির যেন ফাঁসি হয়।’ মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী এমাদুল্লাহ শহিদুল ইসলাম আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করে বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে মামলা চলছে।

 

"