আশুলিয়ায় দুর্ধর্ষ ডাকাতি ২০ লাখ টাকার মাল লুট

প্রকাশ : ২৯ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

আশুলিয়া প্রতিনিধি

আশুলিয়ায় সৌদি প্রবাসীর বাড়িতে অস্ত্র মুখে জিম্মি করে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, ল্যাপটপ ও মোবাইলসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে ডাকাতরা। গতকাল মঙ্গলবার ভোর রাতে আশুলিয়ার পাথালিয়া ইউনিয়নের পূর্ব পানধোয়া গ্রামের সৌদি প্রবাসী মো. কামরুজ্জামানের বাড়িতে এই দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে আশুলিয়া থানা পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

বাড়ির মালিকের স্ত্রী রেক্সোনা আক্তার জানান, রাত ২টার দিকে ১৫-২০ জনের একদল ডাকাত রামদা, চাপাতি, ছুড়িসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমার বাড়িতে হানা দেয়। এ সময় ডাকাত দলের সদস্যরা নিচ তলার ভাড়াটিয়া গার্মেন্ট ব্যবসায়ী কামরুজ্জামানের বাড়িতে হামলা চালিয়ে নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কারসহ মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। টের পেয়ে স্থানীয়রা পূর্ব পানধোয়া বাজার জামে মসজিদে মাইকিং করে। মাইকিং শুনে গ্রামবাসীরা এগিয়ে আসলে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। ভুক্তভোগী ডালিয়া আক্তার বলেন, রাত ২টার দিকে স্থানীয় আমবাগান মহল্লার আবদুল জলিল, আবদুস সালাম, রেজ্জাক, মারুফ, অঙ্কুর, আবদুল্লাহ আল নোমান ও সিরাজুল ইসলাম শিরুসহ ১৫-২০ জনের ডাকাত দল প্রথমে আমার ঘরের গ্লাস ভাঙে। এরপর তারা দরজা ভেঙে ঘরের ভিতর প্রবেশ করে অস্ত্র মুখে আমাদের জিম্মি করে নগদ সাড়ে ৭ লাখ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ১০ ভরি, ল্যাপটপ, ৪টি মোবাইলসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। ডালিয়ার বাবা আবদুল লতিফ জানান, ডাকাতরা আমার বাড়িতেও হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে এবং বিদ্যুৎয়ের লাইন কেটে দেয়।

স্থানীয় ফয়জুল নামে এক ব্যবসায়ী বলেন, পানধোয়া এলাকার চাঁন মিয়ার ছেলে সিরাজুল ইসলাম শিরু বিভিন্ন মানুষের জমি জাল-জালিয়াতি করে জমি দখল করে থাকে। তার পথে বাঁধা হয়ে দাঁড়ালেই রাতের আধারে লোকজন নিয়ে ডাকাতি ও লুটপাট করে থাকে। কিছুদিন আগে পানধোয়া বাজারে চাঁদার দাবিতে স্বর্ণের দোকানে হামলা ও লুটপাটের ঘটনার সঙ্গেও এই চক্রটিই জড়িত। অভিযোগের বিষয়ে আবদুস সালাম বলেন, ডাকাতির কোনো বিষয় ঘটেনি।

"