রংচটা বাসের চেহারা ফিরছে

প্রকাশ : ২৮ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীতে চলাচলরত যেসব বাসের রং উঠে গেছে, আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেগুলোতে রং লাগানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। গতকাল সোমবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন উপদেষ্টা পরিষদের সভার পর সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের এ কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, গাড়িগুলোর চামড়া উঠে গেছে, দেখতে কেমন লাগে আপনারা জানেন। এই প্রবণতাটা বন্ধে মালিক নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানাব। তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বাসসমূহ রং করে সৌন্দর্যবর্ধন করতে হবে। বাসগুলোর বিউটিফিকেশন আপাতত ঢাকা মহানগরে করা হবে। আমার কাছে মনে হয়, ঢাকা মহানগরীর বাসের এমন এমন চেহারা! গ্রামের গাড়িগুলো এদের চেয়ে ভালো। এ কথাটা আমি বারবার বলি, তার পরও আমরা লজ্জা পাই না। ঢাকায় বাসগুলোর প্রতিযোগিতা বন্ধে চুক্তিভিত্তিক চলাচল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান কাদের। সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে আসা না পর্যন্ত ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান মন্ত্রী। বলেন, বিআরটিএর ম্যাজিস্ট্রেট সংকট লাঘব হচ্ছে এবং মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় আটজন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিয়ে ১১ জন হয়েছে।

ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশার খুচরা যন্ত্র আমদানি নিয়ন্ত্রণে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে অনুরোধপত্র পাঠানো হবে জানিয়ে কাদের বলেন, জাতীয় মহাসড়কে ধীরগতির গাড়ি বা লেগুনা চলাচল করতে পারবে না।

মহাসড়কে সর্বোচ্চ ৮০ কিলোমিটার গতিসীমা কঠোরভাবে বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

মন্ত্রী জানান, জাতীয় মহাসড়কে ইজিবাইকের বিষয়ে নীতিমালা প্রণয়নে সড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আব্দুল মালেকের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং আগামী ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কমিটি প্রতিবেদন জমা দেবে।

পরিবহন খাতকে শিল্প হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার যে সিদ্ধান্ত হয়েছে, সে সুবিধা দিতে অর্থ মন্ত্রণালয়কে অনুরোধপত্র পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে জানিয়ে কাদের বলেন, বাস-ট্রাকের ইকোনমি লাইফ নির্ধারণে বিআরটিএ এবং বুয়েটের কাজ দ্রুত শেষ করে প্রতিবেদন দিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আগামী নির্বাচনের আগে সভার সিদ্ধান্তগুলো বাস্তবায়ন সম্ভব হবে কি নাÑ সাংবাদিকদের প্রশ্নে কাদের বলেন, নির্বাচনের সঙ্গে এর কোনো সম্পর্ক নেই। তবে রাতারাতি এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না।

গত বছরের অক্টোবরে রাজধানীতে সিটিং সার্ভিসের বিষয়ে কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বললেও এখনো সিদ্ধান্ত না আসার বিষয়টি সাংবাদিকরা তুলে ধরলে তিনি বলেন, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে এ বিষয়ে সভা হবে। কয়েক দিন একটু অপেক্ষা করুন, সিদ্ধান্ত হবে।

সভায় পরিবহন শ্রমিক নেতা ও নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান, বাস মালিকদের নেতা ও প্রতিমন্ত্রী মশিউর রহমান রাঙ্গা, ঢাকা দক্ষিণের মেয়র সাঈদ খোকনসহ বিভিন্ন সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

"