ঈদের ছুটিতে কক্সবাজারে পর্যটকের ঢল নামার আশা

প্রকাশ : ২১ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

কক্সবাজার প্রতিনিধি

প্রতিবছরের ন্যায় এবার ঈদের টানা ছুটিতেও লাখো পর্যটকে মুখর হয়ে উঠবে কক্সবাজার। গতকাল সোমাবার দুপুরে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত চার শতাধিক হোটেল, মোটেল ও রিসোর্টের ৯০ শতাংশ বুকিং হয়ে গেছে। বাকিটাও ঈদের আগেই শেষ হয়ে যাবে বলে ধারণা সংশ্লিষ্টদের। পর্যটকদের নিরাপত্তা দিতে নানা ব্যবস্থা নিয়েছে জেলা ও পুলিশ প্রশাসন। কক্সবাজারে পর্যটকদের আকর্ষণীয় স্থান সুউচ্চ হিমছড়ি পাহাড়, ঝর্ণা, পাথুরে সৈকত ইনানী, রামুর বৌদ্ধ বিহার ও দীর্ঘ মেরিন ড্রাইভ সড়কের মনোরম দৃশ্য ছাড়াও রয়েছে মনকাড়া অসংখ্য পর্যটন স্পট। সাগর আর পাহাড়ের মিতালী, সঙ্গে ঝর্ণা- কক্সবাজারের এসব প্রাকৃতিক মনোমুগ্ধকর দৃশ্য দেখতে প্রতিবছর ঈদের টানা ছুটিতে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসে লাখো পর্যটক। এবারের ঈদুল আজহার ছুটিতে তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। থাকছে হোটেল মোটেল ও রিসোর্টগুলো সাঁজানোর পাশাপাশি পর্যটকদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা। ব্যবসায়ীরা আশা করছেন, টানা ছুটিতে জমজমাট হবে পর্যটন ব্যবসা। ট্যুর অপারেটর কক্সবাজার (ট্যুয়াক) এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এস এম কিবরিয়া জানান, এ বছর কক্সবাজারের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি একেবারেই শান্ত।

আবহাওয়ারও অনুকূলে। সব মিলিয়ে অন্যান্য বছরের চেয়ে এ বছর পর্যটকের আগমন বেশি ঘটবে বলে আশা করেন তিনি। কক্সবাজার সী-সেইভ লাইফ গার্ডের ইনচার্জ রশীদ আহমদ বলেন, ‘সৈকতে নিরাপত্তার দায়িত্বে প্রচুর সংখ্যক লাইফগার্ড সদস্য রয়েছে। আমরা প্রতিনিয়ত শতর্কতার সঙ্গে পর্যটকদের নিরাপত্তায় কাজ করে যাচ্ছি।’ কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার ফজলে রাব্বী বলেন, ‘বিচ এলাকা সার্বক্ষণিক মনিটরিংয়ে থাকবে। সাগরে যাতে কোনো অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা না ঘটে সে জন্য আমাদের টহল টিম থাকবে।’

প্রসঙ্গত, গত বছরের ঈদুল আজহার ছুটিতে কক্সবাজারে বেড়াতে এসেছিলেন ৩ লাখের বেশি পর্যটক।

"