১ কেজি গরুর মাংস আড়াই হাজার টাকা!

প্রকাশ : ২১ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক
ama ami

রাত পোহালেই পবিত্র ঈদুল আজহা। হাটে হাটে বিক্রির অপেক্ষায় কোরবানির পশু। তবে গতকাল সোমবার পর্যন্ত হাট তেমন জমেনি। ঈদের ২ দিন আগেও বিক্রির এই করুণ চিত্রের কারণ গরুর দাম। হিসাব করে দেখা যাচ্ছে, কোরবানির জন্য কেনা একটি গরুর মাংসের দাম পড়ছে কেজি প্রতি দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা পর্যন্ত। হাটের পাশাপাশি বিভিন্ন ফার্ম থেকেও গরু কিনছে মানুষ। সুদূর টেক্সাস থেকে ৭টি গরু এনে বিক্রি করেছেন মোহাম্মদপুরের সাদিক অ্যাগ্রো ফার্ম। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় গরু দেড় হাজার কেজি ওজনের ‘বাহাদুর’কে বিক্রি হয়েছে ২৮ লাখ টাকায়। অন্যদিকে, এক হাজার ১০০ কেজি ওজনের গরুটিকে বিক্রি হয়েছে ২৫ লাখে। গরুর ওজনের সঙ্গে দামের পর্যালোচনা করে জানা যায়, বাহাদুরের দাম কেজিতে ১৮৬৬ টাকা এবং ১১০০ কেজি ওজনের গরুটির দাম প্রতি কেজি ২২৭২ টাকা।

গাবতলী হাটে আসা বড় গরুর দাম পর্যালোচনা করে কেজি প্রতি দাম আরো বেশি পাওয়া যায়। গাবতলী হাটের বিক্রির জন্য অপেক্ষায় থাকা সবচেয়ে বড় গরু ‘রাজাবাবু’ এর দাম হাঁকা হচ্ছে ৩০ লাখ টাকা। রাজা বাবু লম্বায় প্রায় ১৩ ফিট ও ওজন ২০৯৪ কেজি। সেই হিসাবে কেজিতে রাজাবাবুর দাম আসে ১৪৩২ টাকা। আরেক গরু ‘কালা মানিক’ এর দাম চাওয়া হচ্ছে ২০ লাখ। এটির ওজন ১৬৮০ কেজি।

সেই হিসাবে কেজি প্রতি এটির দাম আসে ১১৯০ টাকা।

অভিজ্ঞ কসাইদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, একটি গরুর প্রতি ১০০ কেজির মধ্যে ৩০ কেজির মতো ফেলে দিতে হয়। সে হিসাবে আরো বেড়ে যায় কেজি প্রতি গরুর দাম। বাহাদুরের মাংস পাওয়া যাবে ১০৫০ কেজি, অর্থাৎ পশুটির কেজি প্রতি মাংসের দাম পড়বে ২৬৬৬ টাকা। ২৫ লাখ টাকার গরুর শুধু মাংসের দাম আসে কেজিতে ৩২৪৬ টাকা। রাজাবাবুর মাংসের দাম হয় কেজিতে ২০৪৯ টাকা এবং কালা মানিকের মাংসের দাম আসে কেজিতে ১১৯০ টাকা।

সাদিক অ্যাগ্রো ফার্ম সূত্রে জানা যায়, বিদেশ থেকে নিয়ে আসা ৭টি গরুর সবগুলোই বিক্রি হয়েছে। এর মধ্যে বাহাদুর নামের সবচেয়ে বড় গরুটি বিক্রি হয়েছে ২৮ লাখ টাকায়। বাহাদুরের ওজন দেড় হাজার কেজি, পশুটি লম্বায় ১০ ফুট। ১১০০ কেজি ওজনের আরেকটি গরু বিক্রি হয়েছে ২৫ লাখ টাকায়।

মোহাম্মদপুর টাউনহল বাজারের ২০ বছরের অভিজ্ঞ কসাই মুরাদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘একটি গরুর প্রতি ১০০ কেজির ৩০ কেজি বাদ যায়। এই ৩০ কেজির মধ্যে ১০-১৫ কেজি থাকে ভূড়ি ও চামড়া আর মাথার খুলি, চোয়ালসহ অন্যান্য জিনিস চলে যায় আরো ১৫ কেজি।’

গরুর দাম নিয়ে মালিকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এসব গরুর রক্ষণাবেক্ষণ খরচ বেশি। বছরে লাখ টাকার মতো খরচ হয় এদের পেছনে। রাজাবাবুকে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া থেকে নিয়ে আসা ছান্নু মিয়া বলেন, ‘বড় গরুরে ভালো খাবার খাওয়াইতে হয়, তাই খরচ বেশি। রাজাবাবুর দাম উঠছে হাটে ১৮ লাখ টাকা। অনেক যতœ করে ২ বছর ধরে পালছি। তার বয়স ৩ বছর ১০ মাস। কেনার সময় ছিল ১৪-১৫ মণ আর এখন প্রায় ৫৩ মণ ওজন। এখন পর্যন্ত এই গাবতলী হাটের সবচেয়ে বড় গরু এটাই।’

"