আন্তর্জাতিক চক্রান্ত এখনো থেমে নেই : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশ : ১৩ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো

দেশীয় ঘাতকদের নিয়ে আন্তর্জাতিক চক্র একের পর এক ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। গতকাল রোববার দুপুরে জাতীয় শোক দিবস উদ্যাপন উপলক্ষে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ১৫ আগস্ট, কেন হলো, কীভাবে হলো, কারা করল? সবই আপনাদের জানা। শুধু দেশীয় নয় এটি আন্তর্জাতিক চক্রান্ত। এই আন্তর্জাতিক চক্রান্ত কিন্তু এখনো থেমে নেই। এখনো একের পর এক দেশীয় ঘাতকদের নিয়ে তারা ষড়যন্ত্রের পর ষড়যন্ত্র করছে।

তিনি বলেন, ১৫ আগস্ট সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট বাঙালি শেখ মুজিবুর রহমানকে হারানোর পর বঙ্গমাতাসহ সেদিন বঙ্গবন্ধুর পরিবারের যারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন তাদের সবাইকে আমরা হারিয়েছি। ওই সময়ে আপনারা দেখেছেন যারা বিদেশে গিয়েছেন তাদের এ ধরনের নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে। আমি নিজেই প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছি। তারা বলেছিলেন তোমরা কীভাবে তোমাদের জাতির পিতাকে হত্যা করেছ? এসব কথা আমাদের শুনতে হয়েছে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আমরা সেই নেত্রীর নেতৃত্বে আছি, দুর্নীতি যার কেশাগ্রও স্পর্শ করতে পারেনি। দুর্নীতির দেশ, খাদ্য ঘাটতির দেশ, বিদ্যুৎ ঘাটতির দেশ, জঙ্গিবাদের দেশে পরিণত হয়েছিল এই বাংলাদেশ। একমাত্র বঙ্গবন্ধু কন্যার কারণেই এই দেশ আজ সফল। এই দেশ আজ খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশ, বিদ্যুতে স্বয়ংসম্পূর্ণ দেশ। এই উন্নতির ধারা বজায় রাখতে হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেই, এটা আমার নয়, বাংলাদেশের জনগণের মনের কথা। যে যেখানেই আছি, সবাই মিলে আমরা হৃদয়ে যে বাংলাদেশকে ধারণ করি, সেই বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করতে হলে শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেই।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, আমরা দেখেছি জাতির জনককে হত্যার পর যুদ্ধাপরাধীদের গাড়িতে এদেশে জাতীয় পতাকা উড়তে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী, যার ধমনীতে বঙ্গবন্ধুর রক্ত প্রবাহিত হচ্ছে, তখন আমাদের মনে আশা হয়েছিল এবার দুঃসময়ের উত্তরণ ঘটবে। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে সারা বাংলাদেশে, গ্রামের পর গ্রাম ঘুরে বেড়িয়েছেন।

একের পর এক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন তিনি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, চন্দনাইশের এমপি নজরুল ইসলাম চৌধুরী, সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ গণি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন প্রমুখ।

"