দোহারে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে আ.লীগ ও জাতীয় পার্টির মাঝে উত্তেজনা

প্রকাশ : ১১ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

দোহার (ঢাকা) প্রতিনিধি

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি খাত উন্নয়ন-বিষয়ক উপদেষ্টা বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যবসায়ী সালমান এফ রহমানের একক প্রচেষ্টায় একনেক বৈঠকে ঢাকার দোহার উপজেলার বিলাসপুর ইউনিয়নের মাঝিরচর থেকে নারিশাবাজার হয়ে মুকসুদপুর পর্যন্ত পদ্মা নদীর ড্রেজিং ও বামতীর সংক্ষণ প্রকল্পে ১ হাজার ৪৮৩ কোটি টাকার বিল পাস হয়েছে। কিছু জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা প্রকল্পটি তাদের করা দাবি করে গত দুই দিন যাবৎ আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেছে। আওয়ামী লীগের এই অর্জন জাতীয় পার্টির কাজ বলে দাবি করতে চায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার এই প্রকল্প পাস হওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যবসায়ী সালমান এফ রহমানকে ধন্যবাদ জানিয়ে সকাল সাড়ে ১১টায় দোহার উপজেলা আওয়ামী লীগ ও বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা আনন্দ মিছিল করে। অপরদিকে, একইদিন বিকেলে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ঢাকা-১ আসনের এমপি সালমা ইসলামের পক্ষ থেকে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে দোহার উপজেলা জাতীয় পার্টির অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। এই নিয়ে দোহারে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এদিকে, গত শুক্রবার দোহার উপজেলার মেঘুলা বাজারে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি ঘোষণা করে দল দুটি।

সরেজমিনে গত শুক্রবার বিকেলে উপজেলার মেঘুলা বাজারে গিয়ে দেখা যায়, জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা তাদের পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচি পালন করতে গেলে সেখানে হঠাৎ করেই বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী নিয়ে উপস্থিত হন দোহার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন। তখন সেখান থেকে সরে পড়েন জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক রফিক তালুকদার বলেন, আমরা পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, আমাদের আজ মেঘুলা বাজারে কর্মসূচি পালনের কথা ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে সেখানে আওয়ামী লীগের লোকজন উপস্থিত হওয়ায় আমরা শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখার স্বার্থে কর্মসূচি বাদ দিয়ে চলে আসি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দোহার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন বলেন, জাতীয় পার্টি সালমান এফ রহমানের অর্জনকে চুরি করতে চেয়েছিল। আমরা তা প্রতিহত করেছি। দোহারের জনগণ আমাদের সঙ্গে আছেন। আমাদের অর্জনকে যারা চুরি করতে চায় আমরা তাদেরকে প্রতিহত করব। ইনশাল্লাহ আগামী নির্বাচনে আমরাই জয়লাভ করব।

 

"