জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস আজ

গ্যাসের সাশ্রয়ী ব্যবহার নিশ্চিতের আহ্বান রাষ্ট্রপতির

প্রকাশ : ০৯ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস। ১৯৭৫ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বহুজাতিক কোম্পানি শেল ওয়েলের কাছ থেকে তিতাস, রশিদপুর, হবিগঞ্জ, বাখরাবাদ এবং কৈলাসটিলা গ্যাস ক্ষেত্র কেনেন। ওই সময় ৪ দশমিক ৫ মিলিয়ন পাউন্ডে গ্যাসক্ষেত্রগুলো কিনে রাষ্ট্রীয় মালিকানা প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। ৭৫-এর সেই ঐতিহাসিক ক্ষণকে স্মরণীয় করে রাখতে ২০১০ সাল থেকে ৯ আগস্টকে জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে। এবারও দিবসটি উপলক্ষে জ্বালানি মন্ত্রণালয় বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সকালে র‌্যালি ও সেমিনার। জ্বালানি বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, বঙ্গবন্ধুর সময়োচিত পদক্ষেপের কারণেই দেশে এখনো সর্বনিম্ন দামে গ্যাস পাওয়া সম্ভব হচ্ছে। এদিকে, দিবসটি উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাণীতে রাষ্ট্রপতি বলেন, দেশের সার্বিক উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য জ্বালানি খাতের উন্নয়ন অপরিহার্য। প্রাকৃতিক গ্যাসের ওপর নির্ভর করে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র, সারকারখানাসহ বিভিন্ন কলকারখানা গড়ে উঠেছে। দেশের মোট বাণিজ্যিক জ্বালানি ব্যবহারের প্রায় ৭১ শতাংশ পূরণ করে প্রাকৃতিক গ্যাস। জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে সীমিত সম্পদের সর্বোত্তম ও সুষ্ঠু ব্যবহারের পাশাপাশি অপচয় রোধ নিশ্চিত করা অপরিহার্য। এ জন্য প্রাকৃতিক গ্যাসের ওপর একক নির্ভরতা কমিয়ে জ্বালানি-মিশ্র এবং বিকল্প বা নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারে জনগণকে উৎসাহিত করতে হবে।

মূল্যবান এ সম্পদের অপচয় রোধে যথাযথ ও সাশ্রয়ী ব্যবহার নিশ্চিত করে জাতীয় উন্নয়নে অবদান রাখতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৫ সালের ৯ আগস্ট ব্রিটিশ তেল কোম্পানি ‘শেল অয়েল’ এর ৫টি গ্যাসক্ষেত্র রাষ্ট্রীয় মালিকানায় কিনে নেওয়ার দূরদর্শী সিদ্ধান্তের ফলে দেশজ জ্বালানিনির্ভর অর্থনীতির সূচনা হয়। এই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কৌশলগত ও রাষ্ট্রনায়কোচিত সিদ্ধান্তের ফলশ্রুতিতেই আজ জাতি স্বল্পমূল্যে দেশীয় গ্যাস ব্যবহার করে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনে এগিয়ে যাচ্ছে। রাষ্ট্রীয় মালিকানায় নেওয়ার পর থেকে তুলনামূলক সাশ্রয়ী জ্বালানির উৎপাদক হিসেবে এ গ্যাসক্ষেত্রগুলো অদ্যাবধি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং জ্বালানি নিরাপত্তার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে।

এদিকে, গতকাল বুধবার এ উপলক্ষে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, প্রতিবছরের মতো দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় উদ্যাপনের লক্ষ্যে এ বছরও বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

"