বরিশালে হচ্ছে পাঁচ তারকা পর্যটন মোটেল

প্রকাশ : ০২ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

বরিশালে পাঁচ তারকা মানের একটি মোটেল ও পর্যটন প্রশিক্ষণকেন্দ্র করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন। বরিশাল নগরের আলেকান্দা নৌজায় কীর্তনখোলা নদীসংলগ্ন বিআইডব্লিউটিএর কাছ থেকে পাওয়া এক একর জায়গাজুড়ে এ মোটেল গড়ে তোলা হবে।

গতকাল সোমবার দুপুরে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে এ-সংক্রান্ত একটি সমঝোতা স্মারকপত্র স্বাক্ষরিত হয়। বিআইডিব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডর এম মোজাম্মেল হক ও পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান আখতারুজ্জামান খান কবির নিজ নিজ পক্ষে স্মারকে স্বাক্ষর করেন। এ সময় নৌমন্ত্রী শাজাহান খান এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, মোটেল তৈরি করতে বিআইডব্লিউটিএ পর্যটন করপোরেশনকে এক একর জমি ‘লাইসেন্স প্রদত্ত সম্পত্তি’ হিসেবে দেবে।

পর্যটন করপোরেশন বিআইডব্লিউএর অনুকূলে জমি ব্যবহারের জামানত বাবদ পাঁচ লাখ টাকা হিসেবে পরিশোধ করবে। সমঝোতা স্মারকপত্রের পর থেকে লাইসেন্স প্রদত্ত সম্পত্তির মেয়াদ হবে ত্রিশ বছর এবং পর্যটন করপোরেশন নির্ধারিত লাইসেন্স ফি বাৎসরিকভিত্তিতে পরিশোধ করবে।

প্রতি ১০ বছর পর লাইসেন্স ফি উভয়পক্ষের সম্মতিতে বৃদ্ধি পাবে এবং ৩০ বছর পর উভয়পক্ষের সম্মতিতে পুনরায় চুক্তি হবে। তবে কোনো পক্ষ ৩০ বছর পর নতুন করে চুক্তি করতে আগ্রহী না হলে ওই সম্পত্তি প্রথম পক্ষের সম্পত্তি হিসেবে গণ্য হবে। মোটেল নির্মাণের যাবতীয় ব্যয়ভার পর্যটন করপোরেশন বহন করবে। এ ছাড়া নির্মাণ-পরবর্তী সব ধরনের মেরামত ও উন্নয়নকাজ নিজস্ব অর্থায়নে করবে পর্যটন করপোরেশন।

অনুষ্ঠানে পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, শিগগিরই মোটেলের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করা হবে। মোটেলটি নির্মিত হলে বরিশালে পর্যটন কার্যক্রমের প্রসারের সঙ্গে এটি জাতীয় অর্থনীতিতে বিশেষ ভূমিকা রাখবে বলে জানান নৌমন্ত্রী শাজাহান খান।

"