রমজানের সাহ্‌রি

প্রকাশ : ০৩ মে ২০১৯, ০০:০০

রন্ধনশিল্পী তানজিন তিপিয়া

সপ্তাহ খানেক পরই পবিত্র মাহে রমজান। এ সময় মধ্যরাতের সাহ্রি খাওয়ার মজাই আলাদা। তবে খাবার হওয়া চাই হালকা, কম মশলাযুক্ত সেই সঙ্গে অবশ্যই পুষ্টিকর। সহজ কিছু ঝটপট সাহ্রির রান্না নিয়েই আজকে প্রথম পর্বের আয়োজন।

 

সুগন্ধি ভাত

উপকরণ : আতপ চাল ১ কেজি, পানি মধ্যমা আঙুলে প্রথম দাগের একটু বেশি, সঙ্গে এলাচ, তেজপাতা, দারচিনি, লবঙ্গ ১টি করে।

প্রণালি : সব উপকরণ একত্রে দিয়ে পানি ফুটে এলে ২০-৩০ মিনিট মৃদু আঁচে দমে দিন। এবার খুব সহজ আপনার সেহরির ভাত তৈরি। গরম গরম পরিবেশন করুন।

 

করলা ভাজি

উপকরণ : করলা বড় কুচি ১টি, আলু কুচি ১টি, বড় পেঁয়াজ কাঁটা ১টি, রসুন কোয়া কুচি ২টি, কাঁচামরিচ গোটা ৫টি, ধনেপাতা কুচি ২ মুঠো, তেল ৬ টেবিল চামচ, লাল মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, হলুদ ১ চিমটি, পানি আধা লিটার, লবণ ১ চা চামচের একটু কম।

প্রণালি : তেলে পেঁয়াজ রসুন ভেজে সব উপকরণ একত্রে দিয়ে সবজি সেদ্ধ ও ঝোল শুকিয়ে মাখা মাখা হয়ে এলেই তেতো স্বাদের করলা ভাজি একদম তৈরি।

 

রুই মাছের ঝোল

উপকরণ : রুই, তেলাপিয়া অথবা বিগহেড ১০ পিস, বড় পেঁয়াজ কাঁটা ২টি, রসুন কোয়া কুচি ২টি, টমেটো কুচি ২টি, কাঁচামরিচ গোটা ৫টি, ধনেপাতা কুচি ২ মুঠো, তেল ৮ টেবিল চামচ, লাল মরিচ গুঁড়া ২ চা চামচ, হলুদ ১/২ চা চামচ, পানি ১ লিটার, লবণ ১ চা চামচ।

প্রণালি : তেলে পেঁয়াজ ভেজে সব উপকরণ একত্রে কষিয়ে পানি দিয়ে মাছ বসিয়ে দিন। ৩ মিমিন সিদ্ধ করুন, এরপর পিঠ উল্টে দিন। ঝোল শুকিয়ে মাখা মাখা হয়ে এলেই অপূর্ব স্বাদের দেখতে মাছের কারি তৈরি।

বি. দ্র. : যেকোনো মাছ অবশ্যই ধোয়ার পর হলুদের গুঁড়া ও লবণ দিয়ে মাখিয়ে কিছুক্ষণ রেখে আবার ধুয়ে নিন। এতে মাছ ময়লা ও জীবাণুমুক্ত এবং দুর্গন্ধমুক্ত হবে। হাতের দুর্গন্ধ দূর করতে ভিনেগার ব্যবহার করতে পারেন, একইভাবে মাছ ভিনেগার দিয়েও ধুতে পারবেন।

 

তেলবিহীন মসুর ডাল

উপকরণ : মসুর ডাল হাতের ৮ মুঠো, পেঁয়াজ কাটা ছোট ১টি, রসুন কোয়া কুচি ২টি, টমেটো ফালি ২টি, কাঁচামরিচ গোটা ৩টি, ধনেপাতা কুচি ১ মুঠো (শেষে), হলুদ ১-২ চা চামচের একটু কম, পানি দেড় লিটার, লবণ ১ চা চামচ, এলাচ, তেজপাতা, দারচিনি, লবঙ্গ ১টি করে।

প্রণালি : ডাল, হলুদ পানির সঙ্গে সিদ্ধ করে নিন। ডাল ফুটে এলে অন্য কড়াইতে অল্প তেলে পেঁয়াজ রসুন লাল করে। ভেজে তেল ভালোভাবে ঝড়িয়ে ডালে দিন। শেষে গরম মশলাগুলো দিয়ে ৫ মিনিট ফোটালেই সুগন্ধি ঘন মসুর ডাল তৈরি।

 

"