ভিন্ন স্বাদের হালুয়া

প্রকাশ : ২৭ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০

রান্নাবান্না ডেস্ক

আসছে পবিত্র শবেবরাত। আর এ দিনে প্রায় প্রত্যেকের বাড়িতেই তৈরি করা হয় হালুয়া-রুটি। এবার শবেবরাতে ঘরেই তৈরি করুন নানা পদের হালুয়া। তাই আজ জেনে নিন কিছু ভিন্ন স্বাদের হালুয়ার রেসিপি।

 

সুজির হালুয়া

উপকরণ : সুজি ১ কাপ। দুধ ১ কাপ। তেল আধা কাপ। ঘি এক চা চামচ (এটা শুধু ঘ্রাণ এবং স্বাদ বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য, পছন্দ না করলে নাও দিতে পারেন)। দারুচিনি ২ টুকরা। এলাচ ২টি। তেজপাতা ২টি। চিনি ১ কাপ। কিশমিশ ও বাদামকুচি (ইচ্ছা)। কুসুম গরম পানি ১ কাপ।

প্রস্তুত প্রণালি : কড়াইতে তেল এবং ঘি (ইচ্ছা) গরম করে তাতে সুজি ভাজুন। এ পর্যায়ে এলাচ ও দারুচিনি দিয়ে দিন। দেখবেন আস্তে আস্তে সুজির রং পরিবর্তন হয়ে যাবে। হলদে ভাব এসে গেলে এবার দুধ এবং কুসুম গরম পানি দিয়ে দিন। এরপর এর মধ্যে চিনি দিয়ে ভালো করে নেড়ে নেড়ে সুজি রান্না করতে থাকুন। এবার যতক্ষণ না সুজি দুধ এবং পানি সম্পূর্ণ শুষে না নেয়, ততক্ষণ রান্না করুন। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন। হালকা আঁচে খুন্তি দিয়ে বারবার নাড়াতে থাকুন। চিনি দেখুন, লাগলে দিন, না লাগলে ওকে বলুন। সুজির পানি শুকিয়ে প্যান থেকে ছেড়ে ছেড়ে এলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন। ব্যস হয়ে গেল মজাদার সুজির হালুয়া। সবশেষে সুজির ওপরে বাদামকুচি এবং কিশমিশ দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন। গরম কিংবা ঠা-া যেভাবে ইচ্ছা খেতে পারেন। তবে হালুয়া গরম গরমই ভালো লাগে।

 

বুটের ডালের হালুয়া

উপকরণ : বুটের ডাল ১ কাপ। চিনি ১ কাপ। দুধ ২ কাপ। লবণ এক চিমটি। ঘি দেড় টেবিল-চামচ। এলাচ ৩-৪টি। দারুচিনি ১ টুকরা। তেজপাতা ২টি।

প্রস্তুত প্রণালি : বুটের ডাল ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা ভিজিয়ে রেখে এরপর ধুয়ে দুধ দিয়ে সিদ্ধ করে নিন। এমনভাবে সিদ্ধ করুন যেন ডাল নরম হয়ে আসে। এরপর পাটা বা ব্লেন্ডারে পিষে নিন মিহি করে। দরকার হলে সামান্য পানি দিতে পারেন। আধা চামচ ঘি গরম করে এলাচ, দারুচিনি এবং তেজপাতা হালকা ভেজে ডালের মিশ্রণ ঢেলে মাঝারি আঁচে রান্না করুন। যখন ডালের সাদা রং বদলাতে থাকবে, তখন অল্প অল্প চিনি মেশাতে থাকুন। চিনির পানি একদম টেনে আঠালো হয়ে এলে কম আঁচে ততক্ষণ রান্না করুন, যতক্ষণ না ডালের হালুয়া পাতিল ছেড়ে ভারী হয়ে আসে। নামানোর আগে আবার বাকি ১ টেবিল-চামচ ঘি দিয়ে মিশিয়ে নামিয়ে নিন। যে প্যানে হালুয়া বসাবেন সেই প্যান আগে থেকে ঘি মেখে রাখুন। হালুয়া ঢালার আগে গরম মসলা তুলে নিন। এরপর হালকা ঠা-া হলে ফ্রিজে রেখে দিন কিছুক্ষণ। যাতে হালুয়া টুকরা করে কাটতে বা যেকোনো নকশা করতে সুবিধা হবে। বায়ুরোধক বক্সে ভরে ফ্রিজে রেখে অনেক দিন খাওয়া যায় এ হালুয়া।

গাজরের হালুয়া

উপকরণ : গাজর ৪০০ গ্রাম, দুধ এক লিটার, চিনি আধা কাপ, গুঁড়োদুধ আধাকাপ, ঘি আধাকাপ, বাদামকুচি তিন টেবিল চামচ ও কিশমিশ সাজানোর জন্য।

প্রস্তুত প্রণালি : প্রথমে গাজর দুধের মধ্যে সিদ্ধ করে নিন। দুধ শুকিয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে ঠা-া করে ব্লেন্ডারে ভার করে ব্লেন্ড করে নিন। এবার একটি প্যানে ঘি দিয়ে তাতে ব্লেন্ড করা গাজর, গুঁড়োদুধ, চিনি ও এলাচ একসঙ্গে মিশিয়ে নাড়তে থাকুন। হালুয়ার পানি শুকিয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে পাত্রে ঢেলে নিন। ঠা-া হলে বাদামকুচি ও কিশমিশ দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন দারুণ সুস্বাদু গাজরের হালুয়া।

ডিমের হালুয়া

উপকরণ : ডিম ৪টি। চিনি ৮ চামচ। ঘন দুধ/কনডেন্সড মিল্ক ১ কাপ। ঘি বা বাটার ১-২ কাপ। ছোট এলাচ ২টি। দারুচিনি ২ টুকরো। গোলাপজল ২ টেবিল চামচ। পেস্তা-কাজু বাদাম-কিশমিশ- ইচ্ছামতো।

প্রস্তুত প্রণালি : প্রথমে ডিমগুলো কাঁটা চামচ দিয়ে ভালোমতো ফেটিয়ে নিতে হবে। এবার ঘন দুধ/কনডেন্সড মিল্ক, চিনি, গোলাপজল ফেটানো ডিমের সথেঙ্গ দিয়ে আবার ভালোমতো মিশিয়ে নিতে হবে, যেন চিনি গলে যায়। এবার চুলায় অল্প আঁচে ননস্টিক প্যান বসিয়ে হাল্কা গরম হলে ঘি/বাটার দিতে হবে ঘি/বাটার মেল্ট হয়ে গেলে দারুচিনি-এলাচ দিয়ে একটু বাদে ডিমের মিশ্রণটা দিয়ে অনবরত নাড়তে হবে, যেন প্যানে লেগে না যায়। নাড়তে নাড়তে বেশ দানা দানা হয়ে ঘি ছেড়ে এলে চুলা থেকে নামিয়ে পেস্তা-কাজু-কিশমিশ দিয়ে পরিবেশন করতে হবে। লক্ষ্য রাখতে হবে, যেন বেশিক্ষণ ভাজা না হয়। তাহলে শক্ত শক্ত হয়ে যাবে।

"