ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের মহাস্থান ব্রিজে ফাটল

মেরামতে যান চলাচল বন্ধ থাকবে ১২ ঘণ্টা

প্রকাশ : ১৩ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

বগুড়া প্রতিনিধি

অর্ধশতাব্দী আগে নির্মিত রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের বগুড়ার মহাস্থান ব্রিজে ফাটল ধরেছে। ব্রিজের ৪টি গার্ডারে ফাটল দেখা দেওয়ায় যানবাহন চলাচল সীমিত করা হয়। পরে ঢাকা থেকে ৪ সদস্যের বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলী বগুড়ায় এসে ওভার লোডিং ও ভারী যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করে ফাটল ধরা চারটি গার্ডারের অংশে একটি বেইলি সেতু নির্মাণ করার পরামর্শ দিয়েছে। সে হিসাবে গতকাল শনিবার রাত ৮টা থেকে আজ রোববার সকাল ১০টা পর্যন্ত ব্রিজ দিয়ে সব যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বেইলি সেতু নির্মাণ না হওয়া পর্যন্ত বিকল্প সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে বলা হয়েছে। তিন দিন ধরে বিকল্প পথ ব্যবহারের কারণে যানবাহন চলাচলও অযোগ্য হয়ে পড়েছে। ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে ওই বিকল্প সড়কে সৃষ্টি হয়েছে অসংখ্য গর্ত।

জানা যায়, গত বুধবার সন্ধ্যায় ব্রিজের গার্ডারে হঠাৎ করে ফাটল দেখা দেওয়ার সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে প্রশাসন থেকে লাল পতাকা লাগিয়ে দেওয়া হয়। ঝুঁকি এড়াতে প্রশাসন থেকে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ করে বিকল্প পথে ভারী যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে উত্তরের যাত্রীরা প্রায় এক ঘণ্টার পথ ঘুরে বগুড়া হয়ে ঢাকা যেতে হচ্ছে। ব্রিজটির কাছে পুলিশ সদস্যরা যানবাহন নিয়ন্ত্রণ করছে। ১৯৫৭ সালে তৎকালীন সরকার বগুড়ার মহাস্থান বন্দরের উত্তর পাশে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের করতোয়া নদীর ওপর ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়। এ ব্রিজে প্রায় দুর্ঘটনা ঘটলেও প্রশাসন থেকে সংস্কারে বা পুনর্নির্মাণে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।

এদিকে, ৩ দিন ধরে টানা বর্ষণের ফলে বিশ্বরোডের বিকল্প পথ হিসেবে শিবগঞ্জ উপজেলার আমতলী-মহাস্থান সড়কের ১১ কি.মি. রাস্তা দিয়ে পাথর, রড, সিমেন্টসহ ভারী যানবাহন গুলো চলাচলের কারণে এই রাস্তাটি বর্তমানে সম্পূর্ণরূপে কার্পেটিং নষ্টসহ শত শত গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এমনকি উপজেলা সদরের ওয়াপদা ড্রেন নামক স্থানে কালভার্টটি দেবে যাওয়ার ফলে রাস্তার দুপাশে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

বগুড়ার মহাস্থান ব্রিজ এলাকার বাসিন্দা সুমন জানান, ব্রিজটিতে ফাটল ধরেছে। উত্তরের অংশের গার্ডার দুর্বল হওয়ার কারণে ব্রিজের মাঝ অংশ দেবে গেছে। করতোয়া নদীও সংস্কার না করায় এবং পানি প্রবাহে বাধা পাওয়ার কারণে সেখানে চর পড়ে নদীর মাটি অংশ শক্ত হয়ে উঠেছে। এ ছাড়া ব্রিজটি সরু হওয়ার কারণে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে। বগুড়া ট্রাফিক ইন্সপেক্টর বিকর্ন চৌধুরী জানান, গতকাল শনিবার রাত ৮টা থেকে আজ সকাল ১০টা পর্যন্ত ব্রিজ মেরামত কাজ চলবে, এ কারণে এ রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ থাকবে। তবে বিকল্প পথে যানবাহন চলাচল করবে। যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছে বলে তিনি জানান। বগুড়া সড়ক ও জনপদের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুজ্জামান জানান, মহাস্থানের ব্রিজের ফাটল ধরা এবং দেবে যাওয়া অংশে বেইলি ব্রিজ করে গাড়ি চলাচলের জন্য সংস্কারকাজ শুরু করা হবে। আজ সকাল ১০টা পর্যন্ত কাজ চলবে। বগুড়া ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর ইফতেখার জানান, ব্রিজটি দেবে যাওয়ার পর ঢাকা থেকে কিংবা অন্য কোন জেলা থেকে আসা ভারী যানবাহন মোকামতলা হয়ে শিবগঞ্জের আমতলী দিয়ে চলাচলের ব্যাবস্থা করা হয়। রংপুর তথা উত্তরের অন্যান্য জেলা থেকে ভারি যানবাহন মোকামতলা দিয়ে আমতলী হয়ে শিবগঞ্জের মধ্য দিয়ে মহাস্থানে এসে মহাসড়ক দিয়ে চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। অন্যদিকে ঢাকা কিংবা অন্য জেলা থেকে আসা ভারী যানবাহন বগুড়া শহরতলীর বারপুর হয়ে বুড়িগঞ্জ-নামুজা হয়ে রংপুরসহ উত্তরাঞ্চলের অন্যান্য জেলায় চলাচলের ব্যাবস্থা করা হয়েছে।

"