হাটহাজারীতে লাইসেন্সবিহীন ব্যাটারি চালিত রিকশা

প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে ব্যাটারী চালিত রিকশার দাপটে প্যাডেল চালিত রিকশা বিলুপ্ত হওয়ার উপক্রম প্রায়। এতে করে দুর্ঘটনার ঝুঁকি ক্রমে বৃদ্ধি পাচ্ছে। চালক ও গাড়ীর বৈধ কাগজপত্র ছাড়া এসব রিকশার কারণে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এছাড়া ব্যাটারীতে চার্জ দিতে গিয়ে বিদ্যুতের লোডশেডিংও বৃদ্ধি পাচ্ছে। জানা যায়, আদালতের রায়ের পর নগরীতে ব্যাটারী চালিত রিকশা বন্ধ হয়ে যায়। নগরীতে চলাচলে আদালতের নিষেধাজ্ঞার পর ব্যাটারী চালিত রিকশাগুলো সিটিকর্পোরেশনের সাথে লাগোয়া হাটহাজারীতে চলে আসে। প্রথমে পৌরসভা এলাকায় চলাচল করলেও পরবর্তীতে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে এ রিকশা ছড়িয়ে পড়ে। দিন দিন ব্যাটারী চালিত রিকশা জনপ্রিয় এবং চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে এক শ্রেণীর স্বার্থান্মেষী মহল রিকশা তৈরির কারখানা গড়ে তুলেছে। খবর নিয়ে জানা গেছে, পৌরসভা এলাকায় প্রভাবশালীদের মদদে প্রায় ১০ টি ব্যাটারী চালিত রিকশা তৈরির কারখানা গড়ে তোলা হয়েছে। উপজেলার আওতাধীন ১৪টি ইউনিয়নে প্রায় সহস্রাধীক ব্যাটারী চালিত রিকশা চলাচল করে। এদিকে, অনভিজ্ঞ,বৃদ্ধ ও অপ্রাপ্ত বয়স্ক শিশুরা এসব রিকশা চালাতে গিয়ে প্রতিদিন ১০/১২ টি দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়। ব্যাটারী চালিত রিকশার কারণে প্যাডেল চালিত রিকশা ক্রমে হারিয়ে যাচ্ছে। দরিদ্র লোকজন যারা প্যাডেল চালিত নিজস্ব রিকশা দিয়ে কিছু আয় উপার্জন করে সংসার চালাত ব্যাটারী চালিত রিকশার কারণে তাদের পরিবারে চরম দূর্ভোগ নেমে এসেছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময় পৌরসভা এলাকায় অভিযান চালিয়ে কিছু কিছু ব্যাটারী চালিত রিকশা জব্দ করলেও পুরাপুরি এসব রিকশা চলাচল বন্ধের ব্যাপারে কোন কার্যকর পদক্ষেপ না করার কথাও জনশ্রুতি রয়েছে। জনাস্বার্থে এসব রিকশা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন সচেতন মহল।

"