নবীগঞ্জের ১১৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি

হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলায় শিক্ষক সংকটের কারণে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম দিন দিন ব্যাহত হচ্ছে। এমনকি দীর্ঘদিন যাবত ওই উপজেলার ৪৩টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক বিহীন থাকায় শিক্ষার মান নিয়ে উদ্বিগ্ন সচেতন মহল। এছাড়া সহকারী শিক্ষকের পদ খালি রয়েছে ৭৩টি। সব দিক মিলিয়ে উপজেলার ১৮২টি বিদ্যালয়ের মধ্যে ১১৬টি বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওই উপজেলায় প্রায় পৌনে তিনশ গ্রামের মধ্যে ১৪টি গ্রামে এখন পর্যন্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়নি। এসব গ্রামের কোমলমতি শিশু-কিশোররা শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত রয়েছেন।

নবীগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ওই উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে ১৮২টি। এসব বিদ্যালয়ে বর্তমানে (চলতি) বছরে মোট শিক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় অর্ধলক্ষ।

একদিকে যেমন শিক্ষক সংকট, অন্যদিকে যারা প্রতিষ্ঠানে আছেন তারা নিয়মিত পাঠদান না করায় শিক্ষা কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে বলে জানান সচেতন মহল। পাঠদানে ব্যাহত হচ্ছে এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন সহকারী শিক্ষক জানা, প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য থাকায় প্রায়ই প্রতিষ্ঠানের কাজে উপজেলা শিক্ষা অফিসে যেতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুর রাজ্জাক জানান, নবীগঞ্জ উপজেলায় বর্তমানে ৪৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের পদ শূণ্য রয়েছে। তাদের তালিকা সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠানো হয়েছে এবং অনেকটা পদোন্নতির প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

১৪টি গ্রামে বিদ্যালয় বিহীনের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, একাধিকবার সভায় আলোচনা করে তালিকা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পাঠানো হয়েছে।

"