স্বীকৃতি চান রাবির ‘আদিবাসী’ শিক্ষার্থীরা

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০

রাবি প্রতিনিধি

সাংবিধানিক স্বীকৃতিসহ তিন দফা দাবি জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা আদিবাসী ছাত্র পরিষদ এবং রাজশাহী মহানগর পার্বত্য চট্টগ্রাম পরিষদের নেতাকর্মীরা। গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্বরে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি তারা এই দাবি জানান। অন্য দুটি দাবি হলো পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন এবং সমতল আদিবাসীদের জন্য স্বাধীন ভূমি কমিশন গঠন।

মানববন্ধনে আদিবাসী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নকুল পাহান বলেন, জাতিসংঘ ঘোষিত আদিবাসী দিবসকে রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন এবং সুযোগ-সুবিধা প্রদানের যে ঘোষণা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিয়েছিলেন, ক্ষমতার ৯ বছরেও তা বাস্তবায়িত হয়নি। ২০১০ সালে প্রধানমন্ত্রী ৩০ লাখ আদিবাসীকে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন, যা আদিবাসীদের জন্য চরম লাঞ্ছনার বিষয়।

তিনি আরো বলেন, ‘সম্প্রতি আমরা দেখছি, সংখ্যালঘুদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। নওগাঁয় আদিবাসী আলফ্রেড সরেন হত্যার ১৭ বছর পেরিয়ে গেলেও আমরা এর বিচার পাইনি। এসডিজিতে সংখ্যালঘুদের কথা থাকলেও তাদের সেভাবে মূল্যায়ন করা হচ্ছে না। এতে সংখ্যালঘুরা আরো সংখ্যালঘুতে পরিণত হচ্ছে।’ এ সময় তিনি আদিবাসীদের সব সমস্যা সমাধানে দেওয়া প্রতিশ্রুতি দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান। মহানগর ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক দীপন চাকমার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ওই মানববন্ধনে বক্তৃতা করেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি দীপেন চাকমা, তথ্য ও প্রচার সম্পাদক মংখ্যাউ রাখাইন, রাবির কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আব্দুল মজিদ অন্তর, রাবি ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি কিংশুক কিঞ্জল, রাবি বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক দিলীপ রায়, রাবি শাখা ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি শাকিল হোসেন প্রমুখ।

"