আদালতের আদেশের পরও মামলা রেকর্ডে গড়িমসি পুলিশের

প্রকাশ : ১৫ জুলাই ২০১৭, ০০:০০

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার পূর্ব নলুয়া ছানা উল্লাহ মুন্সির বাড়ি এলাকায় গত ৭ জুলাই হামলার শিকার হন তিন ভাই। এই ঘটনায় গত ১০ জুলাই আদালতে অভিযোগ করেন তাদের অপর এক ভাইয়ের স্ত্রী। বাদিনীর অভিযোগ, আদালতের নির্দেশের পরও সাতকানিয়া থানা পুলিশ মামলা নিচ্ছে না।

আদালতে দায়ের করা অভিযোগে ১১জনকে আসামি করা হয়। অভিযুক্তরা হলেন- জসীম উদ্দীন (৩৮), মোহাম্মদ শাহাদাত (২০), আরিফ (২৫), তারেক (২৮), শওকত (৩০), ইউনুছ (৩৫), তানিয়া আক্তার (২৫), মো. মিজান (২৬), মো. হেলাল (২৭), মোহাম্মদ আলী (৫৫), খোরশেদ (২৭)।

মামলায় বাদি পক্ষের আইনজীবি আবু তালেব বলেন, একটি দোকানের দখল নেওয়া নিয়ে গত ৭ জুলাই দুপুর ২টার দিকে পূর্ব নলুয়া ছানা উল্লাহ মুন্সির বাড়ি এলাকায় হামলার ঘটনা ঘটে। এতে বাদীনির ভাসুর, দেবর যথাক্রমে সামশুল হক, কামাল উদ্দিন, মোহাম্মদ রাশেদকে আহত হয়। স্থানীয়রা তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে আসে।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় সাতকানিয়া থানা পুলিশ মামলা না নেওয়ায় ১০ জুলাই আদালতে ১১ জনকে আসামি করে অভিযোগ দায়ের করেন বাদীনি। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে সাতকানিয়া থানার ওসিকে এফআইআর হিসেবে গ্রহণ করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়। চট্টগ্রামের সিনিয়র জুডিসিয়াল মাজিস্ট্রেট মো. শহীদুল্লাহ কায়সার এই নির্দেশ দেন। কিন্তু শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত থানা পুলিশ মামলা নেয়নি।

মামলার বাদিনী বলেন, আহত একজনকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন। অপর দুইজন এখনো চিকিৎসাধীন আছেন। সাতকানিয়া থানা পুলিশ মামলা রেকর্ড করছে না। অন্যদিকে আদালতে মামলা করায় আসামীরা প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। ফলে আমরা এলাকায় যেতে পারছি না। আদালতের জিআর সেকশনের সাতকানিয়া থানার জিআরও এসআই জয়নাল আবেদীন বলেন, মামলা নেয়া সংক্রান্ত আদালতের আদেশ ১১ জুলাই সাতকানিয়া থানায় পাঠানো হয়েছে। সাতকানিয়া থানার ওসি রফিকুল হোসেন বলেন, প্রতিদিন দুই-চারটা মামলা রেকর্ড হয়। মামলার চাপে হয়তো রেকর্ড হতে দেরী হচ্ছে। যে কোন মুহুর্তে হয়ে যাবে। এটা কোন বিষয়ই না।

"