মোবাইল সিম জালিয়াতি করে বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে চাঁদা দাবি

প্রকাশ : ১৩ জুলাই ২০১৭, ০০:০০

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডুতে মোবাইলে চাঁদা দাবীর ঘটনায় হাফিজুর রহমান (২৪) নামে এক কৃষককে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার দুপুরে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হাজরা গ্রাম থেকে হরিণাকুন্ডুর থানা পুলিশ তাকে আটক করে। হাফিজুর রহমান চুয়াডাঙ্গার কুতুবপুর গ্রামের মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে। পিতার মৃত্যুর পর তিনি সদর উপজেলার হাজরা গ্রামের নানা বাড়ি বসবাস করতেন। হরিণাকুন্ডু থানার এসআই আব্দুল আওয়াল জানান, হরিণাকুন্ডুর বাগআঁচড়া গ্রামের আব্দুল হালিমের স্ত্রী রিমা খাতুন ও আদর্শআন্দুলিয়া গ্রামের ইমদাদুলের কাছে ০১৮৫৮-৭০৪৮৩৭ নাম্বার রবি মোবাইল থেকে চাঁদা দাবী করা হচ্ছিল। পুলিশ খোঁজ নিয়ে জানতে পারে রবি কোম্পানীর এই সিমটি হাফিজুর রহমানের ভোটার আইডি ও ছবি দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন। এ জন্য পুলিশ দুই জনের জিডির ভিত্তিতে তাকে আটক করে। তবে হফিজুর হরিণাকুন্ডু হাজতখানায় আটক থাকা অবস্থায়ও ওই নাম্বার থেকে চাঁদা চাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশ নিশ্চিত হয় হতদরিদ্র কৃষক হাফিজুর এ ঘটনার সাথে জড়িত নয়। এসআই আব্দুল আওয়াল আরো জানান, আটক হাফিজুর রহমান পুলিশী জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে চুয়াডাঙ্গার বদরগঞ্জ (দশমাইল) বাজারে জনৈক তৈয়ব আলীর ছেলে আব্দুল মান্নানের দোকান থেকে মোবাইল কিনলে তিনিই ছবি ও ভোটার আইডি কার্ড দিয়ে পাশের দোকান থেকে ০১৮৬৩-৭৭৮১১৪ নাম্বারের রবি সিম তুলে দেন। যে সিম দিয়ে চাঁদা দাবী করা হচ্ছে সেটি তার নয়। তার কাছে হুমকি দেওয়া সিমটিও পাওয়া যায়নি। পুলিশেরও ধারণা দোকান থেকে সিম তোলার সময় হয়তো জালিয়াতি হতে পারে। হরিণাকুন্ডুর ওসি কে.এম শওকত হোসেন জানান, বিষয়টি কোন জালিয়াতি চক্রের কাজ। আমরা তদন্ত করছি চক্রটি ধরার জন্য। তিনি বলেন, যে ছেলেটির ছবি ও আইডি দিয়ে সিম রেজিষ্ট্রেশন করা হয়েছে তাকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে এসেছে। সে হাজতখানায় থাকতেও একই নাম্বার থেকে চাঁদা দাবী করা হয়। এতে বোঝা যাচ্ছে সিম জালিয়াতি বা ক্লোন করা হতে পারে।

"