রেল স্টেশন এলাকায় প্রভাবশালীদের অবৈধ গ্যারেজ

প্রকাশ : ১৫ জুন ২০১৭, ০০:০০

শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় রেল জংশন এলাকায় বিভিন্ন যাত্রীবাহন ও মালবাহী বাহন রাখার অবৈধ গ্যারেজ এবং স্ট্যান্ড করেছে স্থানীয় প্রভাবশালীরা। শায়েস্তাগঞ্জ আধুনিকায়ন রি-মডেলিং রেল জংশনের পার্কিং, পরিত্যক্ত রেল গুদাম ও রেল গেট এলাকার এসব দৃশ্য দেখলে মনে হয়ে রেল ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ থেকে লিজ নিয়েছে তারা। দেখা যায়, পৌরসভার কাছ থেকে লিজ নিয়ে গ্যারেজ ও স্ট্যান্ড হিসেবে ব্যবহার করছে মালিক ও চালকরা জানান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ২০০৫ সালে অক্টোবরে সাড়ে চার কোটি টাকা ব্যয়ে শায়েস্তাগঞ্জ আধুনিকায়ন রি-মডেলিংয়ের পর রেল জংশনের পার্কিং, রেল গেট ও পরিত্যক্ত রেল গুদাম এলাকায় ব্যক্তি মালিকানাধীন গাড়ি রাখার নিরাপদ স্থান হিসেবে ব্যবহৃত হতে শুরু করে। এক যুগ ধরে দখল থাকার ফলে, রেল স্টেশন এলাকায় অবৈধ গ্যারেজ এবং স্ট্যান্ডের কারণে বিভিন্ন স্থান থেকে আসা-যাওয়ার যাত্রীরা গাড়ি নিয়ে দখলকৃত এলাকার সামনেই যেতে পারেন না। যত্রতত্র এলোপাতাড়ি যানবাহন রাখার ফলে ট্রেন যাত্রীদের চরম ভোগান্তিসহ ছিনতাইকারীর খপ্পরে পড়তে হয়।

সরেজমিন দেখা যায়, দখলকৃত স্থানে পণ্য ও যাত্রীবাহী গাড়ি, ব্যাটারি ও ইঞ্জিনচালিত যানবাহন যাত্রী ও মালামাল বহনে ব্যস্ত। যাত্রীরা জানান, এ ব্যাপারে কোনো যাত্রী প্রতিবাদ করলে অবৈধভাবে রাখা যানবাহন মালিক কিংবা চালকদের হাতে নাজেহাল হতে হয়।

রেলওয়ে জংশনের সহকারী প্রকৌশলী (পূর্ত) কর্মকর্তা আনোয়ারুল আজিমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, রেল উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও মন্ত্রণালয়কে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এ পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এ বিষয়টি শায়েস্তাগঞ্জ রেলওয়ে জিআরপি পুলিশ ফাঁড়ির দেখার কথা কিন্তু কিছু প্রভাবশালী সরকারদলীয় ক্ষমতার দাপট দেখায় হিমশিম খাচ্ছে বা নাজেহাল হচ্ছে রেলওয়ে পুলিশ।

"