আমতলীতে জীবাণুনাশকের সংকট, বিপাকে স্থানীয়রা

প্রকাশ : ২০ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে আমতলীতে ওষুধের দোকানগুলোতে জীবাণুনাশকের সংকট দেখা দিয়েছে। অনেক দোকানে স্যাভলন ও ডেটল, হ্যান্ড স্যানিটাইজার একেবারেই পাওয়া যাচ্ছে না। ব্যবসায়ীরা বলছেন, পর্যাপ্ত সরবরাহ না থাকায় এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।

আমতলী নতুন বাজার বাধঘাট ফাতেমা মেডিকেলের মালিক মো. নুরুল ইসলাম কাওসার বলেন, বাজারে জীবাণুনাশক ওষুধের সরবরাহ না থাকায় সংকট দেখা দিয়েছে। ক্রেতারা কিনতে এসে ফিরে যাচ্ছেন। সবুজবাগ এলাকার হোসেন আহমেদ বলেন, ‘স্যাভলন কিনতে গিয়েছিলাম কিন্তু ওষুধের দোকানে গিয়ে শুনি নেই।’ খোন্তাকাটা এলাকার গৃহিণী হাফজা বিনতে স্মৃতি বলেন, ‘আমার বাসায় ছোট ছেলে আছে। ছেলের গোসল করাতে ও বাসা জীবাণুমুক্ত রাখার জন্য জীবাণুনাশক কিনতে পারছি না। শহরের কোনো দোকানে স্যাভলন, ডেটলজাতীয় পণ্য নেই।

উপজেলা কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির বলেন, জীবাণুনাশক ওষুধের পাশাপাশি ভিটামিন ‘সি’ ট্যাবলেটেরও চাহিদা বেড়েছে। ক্রেতারা ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ ট্যাবলেট কিনতে আসছেন। কিন্তু এরও সরবরাহ কমে গেছে। তবে বাজারের জীবাণুনাশক পণ্যের বিকল্প হিসেবে সাবান পানি (সোপিওয়াটার) ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন।

আমতলী ৫০ শয্যা হাসপাতালের স্বাস্থ্য প্রশাসক ডা. শংকর প্রসাদ অধিকারী মুঠোফোনে বলেন, দেড় লিটার পানিতে চার চামচ সাবানের গুঁড়া মিশিয়ে তা জীবাণুনাশক হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। এ ব্যাপারে বরগুনা জেলা ওষুধ প্রশাসনের তত্ত্বাবধায়ক (ভারপ্রাপ্ত) সচীন কুমার ঢালী মুঠোফোনে বলেন, ‘হঠাৎ করে জীবাণুনাশক পণ্যের চাহিদা বেড়ে গেছে। কিন্তু প্রয়োজনীয় সরবরাহ না পাওয়ায় সমস্যা হচ্ছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি।

 

"