বাউফলে ৪২ টন সরকারি চাল নিয়ে বিপাকে প্রশাসন

প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল ২০২০, ০০:০০

বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

পটুয়াখালীর বাউফলে নদীপথে আসা ৪২ টন সরকারি চাল নিয়ে বিপাকে পড়েছে প্রশাসন। এ ঘটনায় আটকরা পুলিশের কাছে

স্বীকার করেছে চাল বোঝাই ট্রলার এসেছে বরিশালের

হিজলা থেকে। কিন্তু দুই উপজেলারই খাদ্য অধিদফতর দাবি করেছে ওই চাল তাদের নয়।

জানা গেছে, হিজলার বেশ কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যান ও আ.লীগ নেতা ওই ৪২ টন সরকারি চাল বাউফলে পাচার করে। এ ঘটনা ধামাচাপা দিতে আটকদের ছাড়িয়ে নিতে তদবির চালাচ্ছে ওই প্রভাবশালী মহল। এদিকে উদ্ধারের পাঁচ দিনেও এই বিপুল পরিমাণ চাল কোথা থেকে আসল তার বের না হওয়ায় জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। চলছে নানা গুঞ্জন ।

গত ১৩ এপ্রিল বাউফলে পুলিশের হাতে আটক মালবোঝাই ট্রলারের চালক জয়নাল চৌকিদার স্বীকার করেছে বরিশালের হিজলা উপজেলার সেলিম ও দুলাল নামের দুই ব্যবসায়ীর গোডাউন থেকে ওই ৪২ টন চাল ট্রলারে নিয়ে আসা হয়েছে। তবে থানা পুলিশ জানায় সরকারি এ চালের বিষয়ে হিজলা ও বাউফল উপজেলার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা দাবি করেছেন এ চাল তাদের নয়। তাহলে এ চালের উৎস কোথায় এ নিয়ে দুই উপজেলায়ই চলছে নানা গুঞ্জন।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, সরকারি ৪২ টন চাল কালোবাজারে বিক্রি করেছে হিজলা উপজেলার কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যান এবং ইউপি সদস্য। তাদের নেতৃত্ব দিয়ে এসেছে ওই উপজেলার কয়েকজন আ.লীগ নেতা। পরিস্থিতি ধাপাচাপা দিতে হিজলার স্থানীয় সরকার দলীয় নেতারা বাউফলের প্রশাসনের সঙ্গে দেন দরবার চালাচ্ছে বলে একাধিক সূত্র জানায়।

বাউফল থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আটকদের বিরুদ্ধে বিশেষ আইনের ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। উদ্ধার করা চালের উৎস খোঁজা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য গত ১৩ এপ্রিল রাতে বাউফলে ট্রলার থেকে সরকারি ৪২ টন চাল উদ্ধারের পাশাপাশি হাতেনাতে আটক করা হয় ট্রলারের চালক জয়নাল চৌকিদার এবং শাহজাহান নামের এক চাল ব্যবাসায়ীকে।

 

"