মুক্তিযুদ্ধে পাবনায় ১১ শহীদের স্বীকৃতি চায় পরিবার

প্রকাশ : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০

পাবনা প্রতিনিধি

স্বাধীনতার ৪৮ বছরেও পাবনা সদর উপজেলার দোগাছি ইউনিয়নের চর আশুতোষপুর গ্রামের ১১ শহীদ পরিবার সরকারি সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। আজ পর্যন্ত তাদের খোঁজখবর নেয়নি কেউ। বঞ্চিত হয়েছে রাষ্ট্রীয় সম্মাননা থেকেও। বর্তমানে নিহতদের পরিবারের অনেকেই অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের ও ইটভাটায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। জানা গেছে, ১৩৭৯ বঙ্গাব্দের (১৯৭১ সালের) ৭ আশ্বিন মাঝ নদীতে নিয়ে ওই ১১ জনকে একসঙ্গে গুলি করে হত্যা করে পাকবাহিনী। তাদের অপরাধ ছিল বাড়িতে মুক্তিযুদ্ধের ক্যাম্প করা। নিহতরা হলেন- কফেজ উদ্দিন শেখ, মাহাম শেখ, আজগর আলী শেখ, কুটু খাঁ, কুরান শেখ, কামাল মালিথা, গুলাই শেখ, আমোদ আলী মোল্লা, তাছের ব্যাপারি, নদু সরদার, হোসেন মন্ডল।

শহীদদের মধ্যে হোসেন মন্ডলের স্ত্রী খোদেজা খাতুন ইটভাটায় কাজ করছে। কালাম মালিথার স্ত্রী সাইমুন নেছার পেটে টিউমার হয়ে চিকিৎসার অভাবে মারা গেছেন। শহীদ গুলাই ব্যাপারির মেয়ে জাহানারা আক্তার কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, আমার বাবা পাক-হানাদার বাহিনীর হাতে নিহত হওয়ার পর থেকে আমরা মানবেতর জীবনযাপন করছি। আজ পর্যন্ত কোন সরকারি সহযোগিতা পাওয়া তো দুরের কথা আমাদের খোঁজ খবর পর্যন্ত কেউ নেয়নি। জেলা আ.লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক আজিজুর রহমান টিংকু বলেন, যে ১১ জনকে হানাদার বাহিনী সেদিন গুলি করে হত্যা করেছিল, তারা প্রকৃতই শহীদ, তাদের রাষ্ট্রীয় সম্মাননা দেওয়া উচিত। আমি এ বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি তারা বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়ার আশ^াস দিয়েছেন।

মুক্তিযোদ্ধা আ.স.ম আব্দুর রহিম পাকন বলেন, যারা প্রকৃত মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছেন তাদের পরিবারের খোঁজ খবর নেওয়া প্রয়োজন। এদের খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

"