পদ্মায় বিলীন হলো স্কুল

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

গোদাগাড়ী (রাজশাহী) প্রতিনিধি

ভাঙনের কবলে পড়ে রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি ভবন পদ্মা নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। গত বুধবার রাতে উপজেলার চর আষাড়িয়াদহ ইউনিয়নের চর বয়ারমারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি ভবন পদ্মায় বিলীণ হতে শুরু করে। গতকাল শুক্রবার সকালের মধ্যে পুরো ভবনটি নদীতে বিলীণ হয়।

এদিকে, দুর্গম চরের স্কুল বলে ভাঙন কাছাকাছি চলে এলেও স্কুলটি রক্ষায় কোনোই উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এখন স্কুলটির আরেকটি ভবন এখন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। ভাঙন দ্রুতই এগিয়ে যাচ্ছে সে ভবনটির দিকে। স্কুলটিতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২৬৯ জন। তাদের পড়াশোনাও এখন হুমকির মুখে পড়েছে।

প্রধান শিক্ষক বজলুর রহমান জানান, স্কুলটিতে দুর্গম চরের হঠাৎপাড়া, হবিপাড়া, আমিনপাড়া, চর বয়ারমারী ও আদর্শগ্রামের ২৬৯ জন শিক্ষার্থী লেখাপড়া করে। দুই ভবনে মোট ছয়টি শ্রেণিকক্ষের মধ্যে তিনটি নদীতে বিলীণ হয়েছে। যে ভবনটি আছে সেটা টিকে কি না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। স্কুলটি পুরোপুরি পদ্মায় বিলীণ হলে শিশুদের পড়াশোনার জন্য যেতে হবে তিন থেকে চার কিলোমিটার দূরের কোন স্কুলে। ভারপ্রাপ্ত শিক্ষা কর্মকর্তা মমতাজ মহল জানান, স্কুলটি নদীর ওপারে হওয়ায় সেটি রক্ষায় ব্যবস্থা গ্রহণ করার কোনো উপায় ছিলোনা। বর্তমানে স্কুলটি বন্ধ রয়েছে। অস্থায়ীভাবে ক্লাস করার জন্য বিকল্প ব্যবস্থা করা হবে। চর আষাড়িয়াদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ জানান, ভাঙনে ইতিমধ্যে তার ইউনিয়নের দুটি গ্রাম ও আবাদি জমি নদীতে বিলীণ হয়ে গেছে। এখনও কয়েকটি গ্রাম হুমকির মুখে রয়েছে।

 

"