উজিরপুরে কিশোর গ্যাংয়ের দৌরাত্ম্যে শঙ্কায় অভিভাবকরা

প্রকাশ : ১২ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

শাকিল মাহমুদ বাচ্চু, উজিরপুর (বরিশাল)

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কিশোর গ্যাংদের নানা অপ্রতিকর ঘটনায় সাধানর মানুষ বেশ চিন্তিত ও আতংকিত। দিনেদিনে অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠছে এলাকার কিশোর গ্যাং গ্রুপ। বিশেষ করে বিভিন্ন স্কুল কলেজের সামনে কিশোর গ্যাংরা দলবেধে আড্ডা দিয়ে যৌনহয়রানীসহ নানা ধরনের অপরাধমূলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পরছে। বয়স অল্প হওয়ার কারনে ছোট্র খাটো অপরাধ করেও পার পেয়ে যাওয়া ওইসব কিশোরা পর্যক্রমে তারা বড় ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পরছে।

সম্প্রতিক সময়ে উজিরপুরের বামরাইলের স্কুলছাত্র ইসরাফিল হাওলাদার নয়ন হত্যাকান্ডে কিশোর গ্যাং জড়িত থাকার ঘটনায় সাধারন মানুষকে ভাবিয়ে তুলছে অন্যদিকে চিন্তিত হয়ে পড়ছে অভিবাবকরা। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রায় শতাধিক কিশোর গ্যাং গ্রুপ রয়েছে তাদের সেল্টার দিচ্ছেন ছোট্র খাটো রাজনৈতিক গুটি কয়েক অসাধু নেতারা তাদের ছত্রছায়ায় বেপরোয়া হয়ে উঠছে কিশোর গ্যাং সদেস্যারা। বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অভিযোগ করেন, একশ্রেণির রাজনৈতিক অসাধু নেতারা তাদের অপকর্ম থেকে নিজেদের রক্ষার কৌশল হিসাবে স্কুল পড়–য়া কিশোরদের হাতিয়ার হিসাবে ব্যাবহার করছে। আবার অনেকেই এলাকার আধিপাত্য ধরে রাখতে কিশোর গ্যাং সৃষ্টি করছেন। বর্তমানে অধিকাংশ কিশোরা মাদক সেবন ও ব্যাবসার সঙ্গে জড়িত। উপজেলার শিকারপুর এলাকায় প্রায় শতাধিক কিশোরদের নিয়ে গঠিত হয়েছে মামা বাহিনী নামক এক কিশোর গ্যাং। ওরা স্কুলের গন্ডির মধ্যেই শুরু করেছে নানা অপরাধ মূলক কর্মকান্ড জড়িয়ে পরছে ওই বাহিনী। মামা বাহিনীর সদেস্যদের হাতে প্রতিনিয়ত লাঞ্চিত হচ্ছে সাধারন মানুষ। সরকারী শেরে বাংলা ডিগ্রী কলেজে আধিপাত্য বিস্তার করছে ওই কিশোর গ্যাং আর এ বাহিনীর নেতৃত্ব দিচ্ছেন নিজে ঘোষিত কথিত এক ছাত্রলীগ নেতা। সে নিজে ওই বাহিনীর প্রভাবে নানা অপকর্ম করে বেরাচ্ছেন। বামরইলেও রয়েছে কয়েকটি কিশোর গ্যাং শোলকের ধামুরা বাজারেও রয়েছে বেশ কয়েকটি কিশোর বন্ড তারা নানা ধরনের অপরাধমুলক কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত রয়েছে। সর্বশেষ বামরাইলের ভরসাকাঠী গ্রামের স্কুলছাত্র নয়ন হত্যাকান্ডে কিশোর গ্যাং জড়িত থাকার ঘটনায় অভিবাবকরাও চিন্তিত হয়ে পরেছেন। উজিরপুরের সুশিল সমাজ কিশোর গ্যাংদের প্রতিরোধে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছেন। উজিরপুর মডেল থানার ওসি শিশির কুমার পাল জানিয়েছেন, অপরাধী যেই হোক তাদেও আইনের আওতায় আনা হবে।

 

"