৪ লক্ষাধিক মানুষের সেবায় ৩ চিকিৎসক

প্রকাশ : ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০

ফাইদুল ইসলাম, পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও)

ঠাকুরগাঁওয়ে ৪ লক্ষাধিক মানুষের পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দিচ্ছেন মাত্র ৩ ডাক্তার। সেই সঙ্গে আছে রোগ নির্ণয়ের যন্ত্রপাতিরও সংকট। এর সমাধানে বারবার আবেদন করা হলেও উদ্যোগ নেননি সংকট সমাধানে কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি স্থানীয় সংসদ সদস্য বিষয়টি সংসদ অধিবেশনে উত্থাপন করে স্বাস্থ্য মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

জানা যায়, ১০ ইউনিয়ন ও ১ পৌরসভা নিয়ে গঠিত পীরগঞ্জ উপজেলার জনসংখ্যা ৪ লক্ষাধিক। ইতিপূর্বে ৩১ শয্যার এ হাসপাতালটিকে ৫০ শয্যায় উন্নিত করা হয়। এ জন্য রোগী ভর্তি অনুমতি এবং ওষুধ পথ্য দেওয়া হলেও জনবল কাঠামো রয়ে গেছে ৩১ শয্যার।

হাসপাতাল ঘুরে জানা যায়, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক-সহকারী সার্জনের পদ রয়েছে ২১টি, কিন্তুকর্মরত আছেন মাত্র ৩ জন। হাসপাতালে ডেপুটেশনে মেডিকেল অফিসার আছেন আছেন দুইজনের মধ্যে ডা. আসমাউল ইসলাম পীরগঞ্জ ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং ডা. আলী আজগর ভোমরাদহ উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রে কর্মরত। কিন্তু লোকবল সংকটের কারণে তারা পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দায়িত্ব পালন করছেন। এদিকে অ্যানেসথেসিয়া প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ১ জন ডাক্তার গতবছরের ২ জানুয়ারি বদলে পর থেকে বন্ধ হয়ে গেছে গাইনী বিভাগের সিজারিয়ান অপারেশন। একইভাবে ডেন্টাল বিভাগে চিকিৎসক থাকলেও চেয়ারটি ২০০৭ সালে অকেজো ঘোষিত হওয়ায় এ বিভাগের কার্যক্রম ১২ বছর ধরে বন্ধ।

এছাড়া স্বাস্থ্য কেন্দ্রের মেডিসিন, সার্জারি, আল্ট্রাসনোগ্রাফি, অ্যানেসথেসিয়া, ইউনানি ও শিশু বিভাগে কোন চিকিৎক নেই। এমনকি আবাসিক মেডিকেল অফিসারের পদটিও শূন্য রয়েছে। একই ভাবে শূন্য আছে হাসপাতালের স্যানিটারী ইন্সপেক্টর ও স্টোর কিপারের পদটি। নিজ কাজের পাশাপাশি এই দায়িত্ব পালন করছেন স্বাস্থ্য সহকারী বকুল আলম। এই বিভাগের সিনিয়র স্টাফ নার্স সাবেরা খাতুন নিজের সুবিধামত ঠাকুরগাঁয়ে ডেপুটেশনে রয়েছেন। ফার্মাসিস্টের ৪টি পদ থাকলেও কর্মরত আছেন ২ জন। হাসপাতালের এক্সরে মেশিনটি ২০০৯ সালে অকেজো ঘোষিত হলেও অদ্যাবধি এখানে নতুন মেশিন সরবারাহ করা হয়নি। এদিকে জনবল সংকটের বিষয়টি উপজেলা স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় বারবার সিদ্ধান্ত গৃহীত হলেও সংকট সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ এখনো চোখে পড়ে না। কমিটির সভাপতি, উপজেলা চেয়ারম্যান ও আ.লীগের সম্পাদক আলহাজ্ব আখতারুল ইসলাম বলেন, সম্প্রতি জাতীয় সংসদে বাজেট বক্তৃতার সময় এক দৃষ্টি আকর্ষণী নোটিশে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা কমিটির উপদেষ্টা জাহিদুর রহমান জাহিদ হাসপাতালের সমস্যা সমাধানের জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এ সময় তিনি যতদ্রুত সম্ভব পদগুলো পূরনসহ অন্য সমস্যা সমাধানের দাবি জানান।

জানতে চাইলে পীরগঞ্জ স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. এএ এম আবু তাহের প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, ডাক্তার ও অন্যান্য পদের জন্য আমরা বারবার চাহিদা পাঠিয়েও কোন কাজ হচ্ছে না। এতে অনেক চিকিৎসা সেবা বেহাত হচ্ছে।

 

"