বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ

শিশুর লাশ বাড়ির পাশে পুঁতে রাখেন সৎমা

প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে সিয়াম (৭) নামের এক শিশুকে হত্যা করেছেন সৎমা ফেরসৌসি বেগম (২৮)। নিখোঁজের দুই দিন পর গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৭টায় ওই শিশুর নিজ বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় সৎমা ফেরদৌসি বেগমকে গ্রেফতার করা হয়। নিহত শিশু সিয়াম উপজেলার বদনিভাঙ্গা গ্রামের মিরাজ মোল্লার ছেলে। সে স্থানীয় বিএস রহমাতিয়া দাখিল মাদরাসার ছাত্র।

সূত্রে জানা যায়, মিরাজ মোল্লার প্রথম সংসারের ছেলে সিয়াম গত রোববার দুপুর থেকে নিখোঁজ হয়। সিয়ামকে হত্যা করে লাশ ঘরের সামনে একটি ডোবার মধ্যে লুকিয়ে রেখেছিলেন তার সৎমা ফেরদৌসী বেগম। ঘটনার দিন দুপুরে সিয়াম মাদরাসা থেকে এসে দাদির সঙ্গে বসে একত্রে খাবার খায়। পরে দাদি সালেহা বেগমের সঙ্গে পাশের পাঠামারা গ্রামে ছোট মেয়ের বাড়িতে যেতে না পারায় সিয়াম কান্নাকাটি করে। এ সময় তার সৎমা ফেরদৌসি ঘরে থাকা পাথরের পুতা দিয়ে সিয়ামের পিঠে ও মাথায় আঘাত করে। শিশু সিয়ামের কান্নার শব্দ বাহিরে যেতে না পারে এজন্য তার বাবার গেঞ্জি মুখের মধ্যে দিয়ে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে। পরে ঘরের সামনে টয়লেটের পাশে আবর্জনার গর্তে লাশ ঢেকে রাখে। পরে মিরাজ মোল্লা বাড়িতে এসে স্ত্রীর প্রতি সন্দেহ হয়। মঙ্গলবার তার বোনের ছেলে টয়লেটে গিয়ে প্রথমে লাশটি দেখতে পায়। পুলিশকে সংবাদ দিলে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ও সৎমাকে গ্রেফতার করে।

খবর পেয়ে এএসপি রিয়াজুল ইসলাম, ওসি কে এম আজিজুল ইসলাম, চেয়ারম্যান আকরামুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

 

"