দুই উপজেলার ৫০ হাজার মানুষের ভরসা সাঁকোয়

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি

বরগুনার আমতলী ও তালতলী উপজেলার ২০ গ্রামের ৫০ হাজার মানুষের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা একটি বাশের সাঁকো। আমতলী উপজেলার আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন ও তালতলী উপজেলার পচাকোড়ালিয়া ইউনিয়নকে বিভক্তকারী পচাকোড়ালিয়া খালের ওপর নির্মিত সাঁকোটি দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়ত স্কুল, কলেজ ও মাদরাসাগামী শিক্ষার্থীসহ সাধারন মানুষ চলাচল করছেন।

পচাকোড়ালিয়া খালের উপর ব্রিজ না হওয়ায় স্থানীয়রা নিজ উদ্যোগে বাঁশ দিয়ে সাঁকো তৈরি করে প্রায় ২০ বছর যাবৎ পারাপার হয়ে আসছেন। জানা গেছে, এ সাঁকো দিয়ে ড. শহিদুল ইসলাম কলেজ, চরকগাছিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঘোপখালী আল আমিন দাখিল মাদরাসা, পূর্ব চরক গাছিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কলারং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা যাতায়াত করে। এছাড়াও কচুপাত্রা বাজার ও পচাকোড়ালিয়া বাজারসহ উপজেলা সদরে যাতায়াতের একমাত্র ভরসা এ সাঁকো। স্থানীয়দের অভিযোগ, খালের দুই পাড়ে দুই উপজেলা হওয়ায় সেতু নির্মাণে কেউ উদ্যোগী হয় না। তাই বাঁশের সাঁকোটিই তাদের চলাচলের একমাত্র ভরসা। ওই খালে খেয়া নৌকা দিয়ে পারাপার করতো ২০ গ্রামের মানুষ। প্রায় ২০ বছর আগে স্থানীয়রা নিজ উদ্যোগে সাঁকোটি তৈরি করেন। প্রতিবছর সাঁকোটির মেরামতের কাজও স্থানীয়রাই করেন। ব্যবসা-বাণিজ্য, হাট-বাজার, স্কুল-কলেজ এবং দৈনন্দিন নানা কাজে সাঁকো পেরিয়ে যাতায়াত করতে হয় পূর্ব চরকগাছিয়া, দক্ষিন চরকগাছিয়া, ঘোপখালী, বালিয়াতলী, কলারং, চান্দখালীসহ ২০ গ্রামবাসীর। গ্রামগুলোর কৃষকদের উৎপাদিত কৃষিপণ্য বিক্রিসহ রোগীর জরুরি চিকিৎসার জন্যও ঝুঁকি নিয়ে সাঁকো পার হতে হয়। স্থানীয়দের দাবি, সাঁকোটি ভেঙে সেখানে একটি সেতু নির্মাণ করা হলে ২০ গ্রামের মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত হবে। পচাকোড়ালিয়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান কলারং গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর রশিদ হাওলাদার জানান, পচাকোড়ালিয়া খালের উপর ব্রিজ নির্মাণ করা অতীব জরুরী। বাঁশের সাঁকো দিয়ে শিক্ষার্থী ও বৃদ্ধ নারী পুরুষদের পারাপারে মারত্মক সমস্যা হয়। আমতলী উপজেলার আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান একেএম নুরুল হক বলেন, আমি অনেক আগেই সাঁকোর স্থানে সেতু নির্মাণের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি।

আমতলী উপজেলা প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম বলেন, আরপাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইতোমধ্যে সেতু নির্মাণের আবেদন জানিয়ে চিঠি ইস্যু করেছেন।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনিরা পারভীন বলেন, সাঁকোর বিষয়ে খোজ খবর নিয়ে ব্রিজ নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

"