দুই স্থানে অগ্নিকান্ডে ১৭ দোকান ছাই

প্রকাশ : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক

নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশালে বাংলাদেশ জুটমিলের কলোনিতে অগ্নিকান্ডে ৮ দোকান পুড়ে গেছে। অন্যদিকে মাদারীপুরের কালকিনিতে পাথুরিয়াপাড় বাজারে আগুনে ৯টি দোকান পুড়ে গেছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরÑ

পলাশ (নরসিংদী) : নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল শিল্প এলাকার বাংলাদেশ জুটমিলের কলোনিতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। গত বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে কলোনির দোকানে আগুন লাগলে আটটি দোকানের মালামাল পুড়ে যায়। এতে প্রায় সাড়ে ৬ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানান ভুক্তভোগীরা। কলোনিতে বসবাসরত বাংলাদেশ জুটমিলের সিবিএর সভাপতি ইউসুফ আলী জানান, বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে কলোনির লোকজন কাপড়ের একটি দোকানে হঠাৎ করে আগুনের ধোঁয়া দেখতে পায়। এ সময় আশপাশের লোকজন আগুন আতঙ্কে চিৎকার শুরু করে। আগুন পাশের কয়েকটি দোকানেও ছড়িয়ে পড়ে। ভুক্তভোগী দোকানি জাহাঙ্গারী, অদুদ ও রবি দাস জানান, রাত ১১টার দিকে দোকান বন্ধ করে চলে যাই। পরে রাত ২টার দিকে জানতে পারি দোকানে আগুন লেগেছে। এতে আমাদের দোকানের প্রায় সাড়ে ৬ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে গেছে।

পলাশ উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার হাদিউল ইসলাম জানান, অগ্নিকান্ডের ঘটনার খবর পেয়ে পলাশ ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। অগ্নিকান্ডে আটটি দোকানের মালামাল পুড়ে যায়।

কালকিনি (মাদারীপুর) : ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের পাশে মাদারীপুরের কালকিনিতে অগ্নিকান্ডে ৯টি দোকান পুড়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার ভোরে উপজেলার পাথুড়িয়ারপাড় বাজারে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় ১ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীদের দাবি।

জানা গেছে, সেলিম মীরার টিভি-ফ্রিজের শোরুম থেকে শর্টসার্কিটের কারণে আগুনের সূত্রপাত ঘটে এবং তা দ্রুত পাশের দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। আগুন দেখে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে আগুন নেভাতে ব্যর্থ হন। খবর পেয়ে মাদারীপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও ততক্ষণে সেলিম মীরার টিভি-ফ্রিজের শোরুম, রেজাউল করিমের মুদি দোকান, ইব্রাহিম হাওলাদারের ইলেকট্রিক দোকান, সজিব আকনের চালের দোকান, এনায়েত হোসেনের কসমেটিকের দোকান, মজিবর সিকদারের কাঁচামালের দোকান, ঝন্টু দাসের মুদি দোকান, সিপনের টেইলার ও বাবুলের কাঁচামালের দোকান পুড়ে যায়। এ সময় দোকানে থাকা টাকাও পুড়ে যায়। এ ব্যাপারে কালকিনি ইউএনও আমিনুল ইসলাম বলেন, আগুনে পুড়ে যাওয়া দোকানিদের সরকারিভাবে সাহায্যে সহযোগিতা করা হবে।

 

"