মনপুরায় ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশ : ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০

ভোলা প্রতিনিধি

ভোলার মনপুরায় এক ছাত্রলীগের নেতার বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে সহপাঠিকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত মো. রাকিব হাসান মনপুরা সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি। তার বিরুদ্ধে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় মনপুরা থানায় ওই কলেজ ছাত্রী ধর্ষণ মামলা করে। গত শনিবার ভিকটিমকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে প্রেরন করে পুলিশ। এদিকে অভিযুক্ত রাকিব পলাতক রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কলজেছাত্রীর লিখিত অভিযোগে জানা যায়, ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হাসান কলেজ যাওয়া-আসার পথে প্রেম নিবেদন করে আসছিল। পরে বিয়ে করবে আশ্বাস দিলে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি হয় ওই ছাত্রী। গত ৪ মাস আগে পহেলা বৈশাখে রাকিব ওই ছাত্রীকে মনপুরা হাসপাতালের ছাদে চিলেকোঠায় ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে বিভিন্ন স্থানে ও বাড়িতে ডেকে নিয়ে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। ওই ছাত্রী বিয়ের জন্য রাকিবকে চাপ দিলে সে বিষয়টি এড়িয়ে যায়। পরে ওই ছাত্রী বিষয়টি রাকিবের পরিবারকে জানায়। এতে রাকিব বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে ওই ছাত্রীকে কয়েক দফা মারধর করে। পরে বাধ্য হয়ে বিচারের দাবিতে ইউএনও ও ওসি বরাবর লিখিত আবেদন করেন।

ওই ছাত্রী বলেন, তারা চার বোন। ভাই নেই। তাদের বাবা দিনমজুর। সে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলে বাবা-মা আরও সমস্যায় পড়তো। আর মৃত্যু কোনো সমাধানের পথ না। তাই বিচারের দাবিতে আইনের দ্বারস্থ হয়েছি। ইউএনও মো. বসির আহমেদ বলেন, তিনি ছাত্রীর অভিযোগপত্র জমা নিয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়েছেন। তিনি যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন। ওসি ফোরকান আলি বলেন, মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মামলার তদন্ত ও আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

"