হাতীবান্ধায় ভিত্তিপ্রস্তরেই আটকে আছে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল

প্রকাশ : ০৮ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি ফলক (ম্যুরাল) নির্মাণ নিয়ে ধু¤্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। ৪ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রকল্পের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের ৯ মাস পেরিয়ে গেলেও আজ পর্যন্ত শুরু হয়নি নির্মাণ কাজ। বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ফলক নির্মাণ নিয়ে জেলা পরিষদের সহকারি প্রকৌশলী, ইউএনও, হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা পরিষদ সদস্য ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য দিয়েছেন।

হাতীবান্ধা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক রোকুনুজ্জামান সোহেল বলেন, গত বছরের ২ নভেম্বর উপজেলার মেডিকেল মোড় এলাকায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি ফলক (ম্যুরাল) নির্মাণের জন্য ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মোতাহার হোসেন। এর আগে তিনি বড়খাতা দোয়ানী মোড় এলাকায় আরো একটি স্মৃতি ফলক (ম্যুরাল) নিমার্ণের জন্য ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। কিন্তু ৯ মাস অতিবাহিত হলেও বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নির্মাণ কাজ শুরু হয়নি।

লালমনিরহাট জেলা পরিষদ সদস্য আব্দুস ছামাদ জানান, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি)’র আওতায় ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা দোয়ানী মোড় ও মেডিকেল মোড় এলাকায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি ফলক নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। পরে জানতে পারি ম্যুরাল নির্মাণের প্রকল্পটি এ বছরের বাস্তবায়নের কার্য তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। হাতীবান্ধা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ফজলুল হক দ্রুত সময়ের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর একটি ম্যুরাল নির্মাণের দাবি জানান।

হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান লিয়াকত হোসেন বাচ্চু জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতি ফলক (মুরাল) নির্মাণের জন্য কিছু অর্থ বরাদ্দ হয়েছে। ওই টাকায় নির্মাণ সম্ভব নয় বলে টাকা তুলে রাখা হয়েছে। আরো বরাদ্দ এলে নির্মাণ কাজ শুরু হবে।

লালমনিরহাট জেলা পরিষদের সহকারি প্রকৌশলী আব্দুল কাদের জানান, হাতীবান্ধা উপজেলার বড়খাতা দোয়ানী মোড় ও মেডিকেল মোড় এলাকায় বঙ্গবন্ধুর দুইটি স্মৃতি ফলক (ম্যুরাল) নির্মাণে ব্যয় ধরা হয় ৪ লাখ টাকা। কিন্তু মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন না পাওয়ায় এখন পর্যন্ত নির্মাণ কাজ শুরু করা সম্ভব হয়নি। তবে এ প্রকল্পের নামে কোনো টাকা উত্তোলন করা হয়নি বলে জানান তিনি।

ইউএনও সামিউল আমিন জানান, জাতির জনকের স্মৃতি ফলক (ম্যুরাল) নির্মাণ না হওয়ার বিষয়টি দুঃখজনক। কি কারণে এখনো বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল তৈরি হয়নি তা আমার জানা নাই। দ্রুত সময়ের মধ্যে ম্যুরাল তৈরির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

"