আমতলীতে নির্বাচনী সংঘর্ষে আহত ২৫ : আটক ৪

প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০১৯, ০০:০০

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি

বরগুনার আমতলী সদর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে উপজেলার ইসলামপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. জাহিদুল ইসলাম মিঠু মৃধার সমর্থক সুলতান খন্দকার (৪২) ও আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোতাহার উদ্দিন মৃধার ছোট ভাই জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধাও গুরুতর আহত হয়। আহতদের মধ্যে ৮ জনকে বরিশাল সেবাচিম হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। সংঘর্ষে জড়িত থাকার অভিযোগে সন্দেহভাজন চারজনকে আটক করেছে আমতলী থানা পুলিশ।

ঘোড়া প্রতিকের আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোতাহার উদ্দিন মৃধা জানান, শনিবার দুপুর ১টার সময় তার ছোট ভাই জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধা ৮-১০ জন লোক নিয়ে প্রচারের জন্য ইসলামপুর গ্রামের দেলোয়ার শাহের বাড়িতে অবস্থান নেন। এ সময় নৌকা প্রতিকের কর্মী ও সমর্থকরা তাদের উপর হামলা চালান। এতে তার ছোট ভাই জহিরুল ইসলাম খোকন মৃধাসহ আটজন কর্মী আহত হয় বলে জানান তিনি।

অন্যদিকে জাহিদুল ইসলাম মিঠু মৃধা তার কর্মী সমার্থকদের বিরুদ্ধে হামলার কথা অস্বীকার করে বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোতাহার উদ্দিন মৃধার কর্মী সমর্থকরা আমার দুটি নির্বাচী অফিস ভাংচুর করেন। এ সময় বাঁধা দিলে তাদের হামলায় ১০ জন কর্মী আহত হয়। বিদ্রোহী প্রার্থী মোতাহার উদ্দিন মৃধার কর্মী সমর্থকরা আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালেও নিতে দিচ্ছিনা বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এ সময় তিনি আরো বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থী মো. মোতাহার উদ্দিন মৃধা ও তার ভাইয়েরা ইউনিয়নের বাইরের বহিরাগত মাহেন্দ্র শ্রমিক ও পৌরসভার বিভিন্ন এলাকার সন্ত্রাসীদের নিয়ে এ তান্ডব চালায় ।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল বাশার জানান, সংঘর্ষের সাথে জড়িত থাকায় সন্দেহভাজন চারজনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতরা হলো রবিউল মালাকার (১৭), জসিম উদ্দিন মোল্লা (২৮), শাহ জালাাল আকন (৩৫) ও আরিফ হাওলাদার (১৭)। এলাকায় শান্তিপূর্ন পরিবেশ বজায় রাখার জন্য ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ন স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

 

"