ইবিতে উন্মুক্ত আলোচনায় বক্তারা

বাজেটের ২০ শতাংশ শিক্ষা খাতে বরাদ্দ দাবি

প্রকাশ : ২৭ জুন ২০১৯, ০০:০০

এ আর রাশেদ, ইবি

ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ে (ইবি) শিক্ষা বাজেটের ওপর উন্মুক্ত আলোচনায় বক্তারা ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট শিক্ষাবান্ধব নয় বলে মন্তব্য করেছেন। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় বিশ^বিদ্যালয়ের টিএসসিসিতে এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। পরে প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশগ্রহণ করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এর আয়োজন করে ছাত্র ইউনিয়ন বিশ^বিদ্যালয় সংসদ।

সভায় বিশ^বিদ্যালয়ের সাবেক সিন্ডিকেট সদস্য ও পরিসংখ্যান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আলতাফ হোসেন বলেন, বর্তমানে শিক্ষাক্ষেত্র বাণিজ্যিক ও বেসরকারীকরণ হয়ে গেছে। ফলে শিক্ষকরা গবেষণায় আগ্রহ হারাচ্ছেন। এজন্য শিক্ষার যেটুকু বাজেট আসছে তা নষ্ট হচ্ছে। তাই আগে শিক্ষার মূল পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশ^বিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের জ্যেষ্ঠ অধ্যাপক ও অর্থনীতিবিদ আবদুল মুঈদ বলেন, বাজেট করতে হলে একটি দৃষ্টিভঙ্গির দরকার আছে। এবারের বাজেটটি গতানুগতিক বাজেট। বাজেটে শিক্ষা খাতে কত দরকার ছিল এটা দেখার বিষয়। প্রয়োজন অনুযায়ী বাজেটাই মূল বিষয়। কিন্তু এই বাজেটে সে ধারা রক্ষা হয়নি। তিনি সমালোচনা করে বলেন, সরকার বলবে টাকা নেই। অথচ কালো টাকার পরিমাণ কিন্তু প্রায় ৫ হাজার ৮০ কোটি টাকা। এছাড়া পাচার হয়েছে প্রায় ৫ লাখ ৮৮ হাজার কোটি টাকা। যতদিন পর্যন্ত বাজেটে দর্শন বৃত্তি ভালো না হবে, ততদিন পর্যন্ত সরকারের কাছে ভালো বাজেট আশা করা যায় না।

অনুষ্ঠানের ছাত্র ইউনিয়নের ইবি সম্পাদক জি কে সাদিক বলেন, শিক্ষা বাজেটে অর্থ বৃদ্ধি এক ধরনের শুভঙ্করের ফাঁকি। প্রযুক্তি খাতসহ অন্যান্য খাতকে এর সঙ্গে সংযুক্ত করা হয়েছে, যা ঠিক হয়নি। আমরা চাই মোট বাজেটের ২০ শতাংশ শিক্ষা খাতে বরাদ্দ দেওয়া হোক। সংগঠনের সভাপতি নুরুন্নবী ইসলাম সবুজের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সাইফুজ্জামান, অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফারহা তানজিম তিতিল প্রমুখ।

 

"