শাহরাস্তিতে বিয়ের প্রলোভনে কিশোরী, মোরেলগঞ্জে প্রতিবন্ধী

প্রকাশ : ১৫ জুন ২০১৯, ০০:০০

শাহরাস্তি (চাঁদপুর) ও মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে বিয়ের প্রলোভনে এক কিশোরিকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত হুমায়ুন কবিরকে (১৯) আটক করেছে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার সূচীপাড়া উত্তর ইউনিয়নের শোরসাক গ্রামে থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক হুমায়ুন ওই গ্রামের ইসমাইল মিজিবাড়ির মৃত আ. রশিদেও ছেলে।

পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই গ্রামের হুমায়ুন কবির গত ২০১৭ সাল থেকে একই বাড়ির স্থানীয় অক্সফোর্ড মডেল স্কুলের এক ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করতো। ওই কিশোরী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়াকালীন সময়ে হুমায়ুনের বড় বোনের কাছে প্রাইভেট পড়তো। সেই সময় থেকে ওই কিশোরীকে ফুঁসলিয়ে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে। এর আগে ওই সম্পর্কের কারণে কিশোরী গর্ভবতী হয়ে পড়ে। পরে হুমায়ুন তাকে নানা অযুুহাতে সন্তান নষ্ট করে। বিষয়টি পরিবারের সদস্যদের জানালে তারা থানায় ধর্ষক হুমায়ুনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। গত বৃহস্পতিবার এসআই মো. আবদুল আউয়াল সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে শোরসাক এলাকা থেকে হুমায়ুনকে আটক করে।

এদিকে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, উপজেলার খাউলিয়া ইউনিয়নের নিশানবাড়িয়া গ্রামের এক বাক প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের অভিযোগে উঠেছে। গতকাল শুক্রবার অভিযুক্ত ধর্ষক সুজন শীলকে (৩৫) আটক করেছে পুলিশ।

অভিযোগে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার খাউলিয়া ইউনিয়নের নিশানবাড়িয়া গ্রামের এক বাক প্রতিবন্ধীকে একই ইউনিয়নের সন্ন্যাসী এলাকার অতুল চন্দ্র শীলের ছেলে সুমন চন্দ্র শীল বাড়ি থেকে ফুসলিয়ে নিয়ে যায়। সুমন শীল ওই যুবতীকে সন্ন্যাসী বাজারের একটি চায়ের দোকানে নিয়ে নিয়ে ধর্ষণ করে। ওসি কে এম আজিজুল ইসলাম জানান, ধর্ষক সুমন শীলকে আটক করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ধর্ষিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বাগেরহাট হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার চাচা বাদী হয়ে মোরেলগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

 

"