প্রতিরক্ষা দেয়ালে ধস

১২০ ফুট সড়ক খালে

প্রকাশ | ১৪ জুন ২০১৯, ০০:০০

ধর্মপাশা (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাহুটিয়াকান্দা গ্রামের সড়কের প্রতিরক্ষা দেয়াল ধসে লাগোয়া শয়তানখালী খালে পড়ে গেছে। ফলে ওই সড়কটির প্রায় ১২০ ফুট জায়গায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় সড়কটি ওপর দিয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে যান চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে স্থানীয়দের। ভাঙনের ফলে সড়কটি সংকোচিত হওয়ায় ঘটছে দুর্ঘটনা।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডির) উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ধর্মপাশা-জয়শ্রী সড়কটির দূরত্ব প্রায় ১০ কিলোমিটার। এই সড়কটি এলজিইডির অধীনে। সড়কটিতে ১৬ থেকে ১৭ বছর আগে ইটের সোলিং নির্মাণকাজ করা হয়। ওই সময়ে উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাহুটিয়াকান্দা গ্রামের সামনের সড়কের দক্ষিণপাশে শয়তানখালী খালসংলগ্ন সড়কটি ভাঙনের কবল থেকে রক্ষায় প্রায় ২০০ ফুট স্থানজুড়ে প্রতিরক্ষা দেওয়াল নির্মাণ করা হয়। সড়কটির বেশির ভাগ স্থান ২০০৮-০৯ অর্থবছরে পাকাকরণ করা হয়। গত ২ জুন রাতে বাহুটিয়াকান্দা গ্রামের সামনের সড়কসংলগ্ন প্রতিরক্ষা দেওয়ালটির বেশকিছু স্থান ধসে শয়তানখালী খালে পড়ে গেছে। এতে সড়কটির প্রায় ১২০ ফুট স্থানে ভাঙন দেখা দেয়। সড়কটির ওপর দিয়ে ইজিবাইক, মোটরসাইকেল, রিকশা, হ্যান্ডট্রলি, ট্রাক, লেগুনাসহ দৈনিক গড়ে ৪ শতাধিক যান বাহন চলাচল করে। এ সড়ক দিয়ে ধর্মপাশা সদর, জয়শ্রী, সুখাইড় রাজাপুর উত্তর, সুখাইড় রাজাপুর দক্ষিণ ইউনিয়ন ও আশপাশের প্রায় লক্ষাধিক মানুষ উপজেলা সদরে আসা যাওয়া করে।

এছাড়া শুষ্ক মৌসুমে উপজেলাবাসী এই সড়ক দিয়ে জেলা সদরে যাতায়াত করে। প্রতিরক্ষা দেওয়ালাটি ধসে পড়ায় ও ভাঙন দেখা দেওয়ায় সড়কটি সরু হয়ে গেছে। এতে করে প্রায় প্রতিদিইন কোনো না কোনো দুর্ঘটনা ঘটছে। উপজেলার সদর ইউনিয়নের বাহুটিয়াকান্দা গ্রামের বাসিন্দা এরশাদ মিয়া বলেন, গত ২ জুন রাতে ওই সড়কটিতে থাকা প্রতিরক্ষা দেয়াল ধসে পড়ায় ওই সড়কের প্রায় ১২০ ফুট জায়গাজুড়ে ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে।

দ্রুত সড়কটি মেরামতের উদ্যোগে নেওয়া না হলে আরো ভয়াবহ ভাঙনের আশঙ্কা রয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলী শাহ মো. আবদুল ওয়াদুদ বলেন, এ সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এলজিইডির সুনামগঞ্জ কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী ইকবাল আহমেদ বলেন, বিষয়টি কেউ আমাকে জানায়নি। ভাঙনের কবল থেকে সড়কটি রক্ষায় যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

"