জামালপুরে বেসরকারি হাসপাতাল

অবকাঠামো নেই: তবুও হাসপাতালের সুপারিশ

প্রকাশ : ১৪ জুন ২০১৯, ০০:০০

জামালপুর প্রতিনিধি

হাসপাতাল স্থাপনের ভৌত অবকাঠামো, যন্ত্রপাতি, আসবাবপত্র, ডাক্তার-নার্সসহ প্রয়োজনীয় লোকবল যথাযথ বিবেচনা না করেই ‘জামালপুর এপোলো’ নামের একটি বেসরকারি হাসপাতালের লাইসেন্স দেওয়ার সুপারিশ করেছে জামালপুরের সির্ভিল সার্জন ডা. গৌতম রায়। গত ১৮ মে বেসরকারি হাসপাতাল পরিদর্শন কমিটির সভাপতি সিভিল সার্জন ডা. গৌতম রায় ও সদস্য সচিব সদর স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহফুজুর রহমান সোহানসহ স্বাস্থ্য বিভাগের একটি টিম ওই হাসপাতাল পরিদর্শন করে গত ২৯ মে স্বাস্থ্য মহাপরিচালকের কাছে এই সুপারিশ প্রেরণ করেন।

এদিকে পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল হিসাবে রিপোর্ট প্রদানের দুই সপ্তাহ পর এপোলো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গত মঙ্গলবার পত্রিকায় ডাক্তার-নার্সসহ প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। অভিযোগ উঠেছে, প্রয়োজনীয় অবকাঠানো ও লোকবল নিয়োগ না হলেও তদবিরের জোরে একটি অসম্পন্ন হাসপাতালকে লাইসেন্সের জন্য সুপারিশ দিয়েছেন সিভিল সার্জন।

সরেজমিন পরিদর্শনের সময় দেখা গেছে, ওই হাসপাতালের নির্মাণ কাজ এখনো চলছে। এরই মধ্যে ওই হাসপাতালে রোগী ভর্তিসহ গুরুত্বপূর্ণ অপারেশনও শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে। জানতে চাইলে জামালপুর এপোলোর ব্যবস্থাপনা পরিচলক মো. সাজেদুর রহমান চৌধুরী বলেন, আমরা ১০ বেডের হাসপাতালের আবেদন করেছিলাম। অবকাঠামো না থাকায় তখন লোকবল নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি হয়নি। এখন দেওয়া হয়েছে। তবে প্রয়োজনীয় লোকবল ও অবকাঠামো ছাড়া কি করে তিনি হাসপাতালের সুপারিশ পেলেন তার সদুত্তর দিতে পারেননি এই কর্মকর্তা।

জানতে চাইলে সির্ভিল সার্জন ডা. গৌতম রায় প্রতিদিনের সংবাদকে বলেন, আমরা যখন পরিদর্শনে গিয়েছিলাম তখন এপোলো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাদেরকে ডাক্তার-নার্সসহ প্রয়োজনীয় লোকবল দেখিয়ে ছিল। তবে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ সম্পর্কে বলেন, ডাক্তার-নার্স ও কর্মচারীরা তাদের নিয়োগকৃত, না ধার করা তা এখন তদন্ত করে দেখা হবে। অসঙ্গতি পেলে আগামী ৩০ জুনের মধ্যে ওই হাসপাতালের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

"