আমতলী-ঢাকা নৌপথ

লঞ্চে ধারণক্ষমতার অধিক যাত্রী বহন

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৯, ০০:০০

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি

ঈদ শেষে কর্মস্থল ঢাকায় ফিরছেন দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের যাত্রী। এই সুযোগ ধারণ ক্ষমতার চেয়ে অধিক যাত্রী বহন করছে লঞ্চগুলো। গতকাল মঙ্গলবারও বরগুনা, পুরাকাটা, আমতলী লঞ্চঘাট থেকে ধারণ ক্ষমতার তিন-চার গুন যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যেতে দেখা গেছে। অভিযোগ আছে, বিআইডব্লিউটিএ ও প্রশাসনকে ম্যানেজ করে তিন-চার গুন যাত্রী পরিবহন করছে লঞ্চ মালিক কর্তৃপক্ষ। ফলে প্রতিকার মিলছে না। এদিকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করছেন যাত্রীরা। লঞ্চের স্টাফ ও দালালদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকায় কেবিন ও ডেকের জায়গা কিনতে হচ্ছে।

ভুক্তভোগী যাত্রী ও সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এমভি ইয়াদ লঞ্চে যাত্রী ধারণ ক্ষমতা ৩৯৬ জন, নেওয়া হচ্ছে ১ হাজার ২০০ জন। প্রিন্স অব হাসান-হোসেন-১ লঞ্চে যাত্রী ধারণ ক্ষমতা ৩৪২ জন, নেওয়া হচ্ছে ১ হাজারের বেশি। এমভি সুন্দর বন-৬ লঞ্চের যাত্রী ধারন ক্ষমতা ৬০৩ জন, নেয়া হচ্ছে ১৫শ থেকে ১৮শ জন। আগে আমতলী-ঢাকা প্রথম শ্রেণির সিঙ্গেল কেবিনের ভাড়া ছিল ১ হাজার টাকা, ডাবলে কেবিনের ২ হাজার টাকা এবং ডেকের যাত্রী ভাড়া ছিল ৩০০ টাকা। ঈদের আটদিন পূর্বে কোন কারণ ছাড়াই সিঙ্গেল কেবিনে ১২শ, ডাবল কেবিন ২৪শ এবং ডেকের ভাড়া ৩৫০ টাকা আদায় করছে।

লঞ্চঘাট ঘুরে দেখা গেছে, এমভি সুন্দর বন-৬ লঞ্চ ধারণ ক্ষমতার চেয়ে তিনগুন যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ঘাট ছেড়েছে। লঞ্চটি ঘাট ত্যাগ করার কথা বিকেল ৪ টায় থাকলেও দুপুর ১ টায় ছেড়ে গেছে। জানতে চাইলে অভিযোগ অস্বীকার করে এমভি সুন্দর বন-৬ লঞ্চের সুপার ভাইজার বলেন, ঈদ উপলক্ষে যাত্রীদের চাপ বেশী। তাই সময়ের তিন ঘন্টা পূর্বে লঞ্চ ছেড়ে দিয়েছি।

বরগুনা বিআইডব্লিউটিএ আমতলী লঞ্চঘাটে টিকেট আদায়কারী মো. বিল্লাল হোসেন বলেন, এমভি সুন্দর বন-৬ লঞ্চটি ঘাট থেকে দুপুর ১ টায় ১ হাজার ৩০০ যাত্রী নিয়ে ছেড়ে গেছে।

বরগুনা বিআইডব্লিউটিএ সহকারী পরিচালক মামুনুর রশিদ বলেন, ওই ঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও ধারন ক্ষমতার চেয়ে বেশী যাত্রী বহনের বিষয়টি দেখার জন্য প্রশাসনের লোকজন রয়েছে। বরগুনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কমলেশ মজুমদার মুঠোফোনে জানান, জেলা প্রশাসনের নির্দেশনার বাইরে কোন লঞ্চে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ও অতিরিক্ত যাত্রী বহন করতে পারবে না। এটা করে থাকলে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

"