মোরেলগঞ্জের কাঠের পুল ঝুঁকি নিয়ে পারাপার

প্রকাশ : ১১ জুন ২০১৯, ০০:০০

শাহ আলম তালুকদার, মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট)

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলায় খাউলিয়া খালের ওপর তৈরি গুরুত্বপূর্ণ কাঠের পুলটি কয়েক বছর ধরে জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে আছে। উপজেলার খাউলিয়া ইউনিয়নের খাউলিয়া ও চালিতাবুনিয়া গ্রামের সংযোগ স্থাপনকারী পুলটি জোড়াতালি দিয়ে সচল রাখার ব্যার্থ হচ্ছে স্থানীয়রা। ফলে প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে শত শত শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী পুল পারাপার হচ্ছেন।

ইউনিয়নের খাউলিয়া খালের বাজার সংলগ্ন শাখা খালের এ পুলটি ১২-১৪ বছর আগে নির্মিত হয়। ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড ও চালিতাবুনিয়া ২ নং ওয়ার্ডের খালের মোহনার জনগুরুত্বপূর্ণ এ পুলটি দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার জনসাধারণ যাতায়াত করে। এদিকে কাঠের পুলের এপাড়ে রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ খাউলিয়া বাজারসহ নানা প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে আছেঠ ১২৫ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চালিতাবুনিয়া মাদরাসাসহ আরো ৪টি প্রাথমিক বিদ্যালয়। মোরেলগঞ্জ সদরগামী জনসাধারণ ও স্কুল-কলেজগামী অনেক শিক্ষার্থী এ পুল পার হয়।

সরেজমিনের দেখা যায়, বয়সের ভারে পুলটি হেলে পড়ার উপক্রম হয়েছে। কালক্রমে পুলটির নিরাপত্তা রেলিং বিলুপ্ত হয়ে গেছে। খোয়া গেছে নানা যন্ত্রাংশ। পরাপারের সময় পুলটি দুলতে থাকে। বিশেষ করে ¯্রােতবাহী খালের কারনে শিশু ও বৃদ্ধরা পুলটি পার হতে ভয়পায়। চাকরিজীবী মিরাজ হোসেন জানান, পুলটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। যে কোন মুহূর্তে ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা। এক যুগ আগে সাবেক এক চেয়ারম্যানের আমলে এ পুলটি সরকারিভবে নির্মিত হয়েছিল। তিনি আরো বলেন, কোন লোক অসুস্থ হয়ে পড়লে এ পুল দিয়ে যানবাহনে নেয়ার উপায় থাকে না।

খাউলিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাস্টার আবুল খায়ের জানান, গত বছরে দেড় লাখ টাকা ব্যয়ে ও উপজেলা সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আজমিন নাহার কর্তৃক উপজেলা পরিষদের বরাদ্ধ থেকে সংস্কার করা হয়েছিল। এ বছরের ইউপি পরিষদ অর্থায়নে সংস্কার করা হবে এবং আগামি বছর এলজিএসপির বরাদ্ধ থেকে পুলটি পুনঃনির্মাণ করা হবে।

 

"