কুয়াকাটায় পর্যটকদের ওপর বাস শ্রমিকের হামলা

প্রকাশ : ১০ জুন ২০১৯, ০০:০০

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় ভাড়া নিয়ে বাকবিত-ার জের ধরে চলন্তবাসে পর্যটকদের ওপর বাস শ্রমিকদের হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার রাত ৮ টার দিকে আলীপুর-কুয়াকাটা মহাসড়কে ‘নিউ মায়ের দোয়া’ বাস শ্রামকিরা এ হামলা চালায়। এতে রতন ও শফিকুল ইসলাম নামের দুই পর্যটক আহত হন। বাসের অন্যযাত্রীরা আহতদের উদ্ধার করে কুয়াকাটা হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

বাসের যাত্রীদের সূত্রে জানা যায়, চলন্ত বাসে ভাড়া নিয়ে বাকবিতন্ডার জের ধরে বাসের চালক, সুপারভাইজর, হেল্পারসহ শ্রমিকরা পর্যটকসহ একাধিক যাত্রীদের উপর রোলার নিয়ে হামলা ও বেধড়ক মারধর করে।

পর্যটকদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, চারবন্ধু ঢাকার মিরপুর থেকে কুয়াকাটা যাওয়ার উদ্দেশ্যে শনিবার আমতলী স্ট্যান্ড থেকে বাসে চড়েন। কুয়াকাটায় যাওয়ার জন্য জনপ্রতি ৫০ টাকা করে ভাড়া নেন বাসের সুপারভাইজার। কিন্তু বাসটি ইঞ্জিন বিকলের কথা বলে শেখ রাসেল সেতুর সংযোগ সড়কে ‘নিউ মায়ের দোয়া’ বাসে তুলে দেয়। এ সময় আগের বাসের সুপারভাইসার নতুন করে ভাড়া না দেওয়া কথা বলে।

আহত পর্যটক রতন জানান, পথিমেধ্যে নতুন করে ভাড়া চাইলে বাগবিতন্ডার এক পর্যায় হাতাহাতি হয়। পরে বাসের চালক, সুপার ভাইজরসহ হেল্পাররা কুয়াকাটা-কলাপাড়ায় থেকে অপর শ্রমিকদের খবর দিয়ে এনে বাসে থাকা ১৫-১৬ পর্যটকসহ সকল যাত্রীদের উপর রোলার দিয়ে হামলা চালায়। পরে স্থানীরা বাস ঘেরাও করলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। মহিপুর থানার ওসি সাইদুল ইসলাম জানান, বাস মালিক রাজ্জাক চৌকিদার এসে আহত পর্যটকদের চিকিৎসা খরচ দিয়েছেন এবং শ্রমিকরা আহত পর্যটকদের কাছে মাফ চেয়েছে। বাসের ড্রাউভার, সুপার ভাইজার ও হেলপারকে চাকুরীচ্যুত করা হয়েছে।

 

"