সুন্দরগঞ্জে নিখোঁজের পরদিন বাঁশঝাড়ে মরদেহ

প্রকাশ : ০৯ জুন ২০১৯, ০০:০০

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার নিখিল চন্দ্র বর্মণ (৪৮) নামে একব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলা দহবন্দ ইউনিয়নের দক্ষিণ জরমনদী গ্রামে নিহতের বাড়ির পাশের একটি বাঁশঝাড় থেকে এই মরদেহ উদ্ধার করা হয়। গত শুক্রবার রাত থেকে নিখিল চন্দ্র নিখোঁজ ছিলেন বলে জানিয়েছে তার পরিবার। তিনি ওই গ্রামের মৃত ক্ষেত্র মোহন বর্মণের পুত্র। পুলিশের ধারণা, সুদের ব্যবসার জের ধরে এই হত্যাকা- ঘটতে পারে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, কয়েক বছর আগে ১ম স্ত্রীর মৃত্যুর পর নিখিল চন্দ্র ২য় বিয়ে করেন। গত শুক্রবার রাত থেকে নিখোঁজ নিখিল চন্দ্রকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করা হয়। পরের দিন সকালে বাড়ির পাশে বাঁশঝাড়ের একটি বাঁশের সঙ্গে তার গলায় শার্ট পেঁচানো অবস্থায় মরদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে থানা অফিসার ইনচার্জ এসএম আব্দুস সোবহান বলেন, নিখিল চন্দ্র বর্মণ সুদে ব্যবসা করতেন। তিনি ২০-২৫ লাখ টাকা মানুষের কাছ থেকে পাওনাদার ছিলেন। সে টাকার লেনদেনের জের ধরে এ হত্যাকা-ের সূত্রপাত ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে নিহতের বড় ভাই নারায়ণ চন্দ্র বর্মণ বাদী হয়ে একটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

 

"