কাছ থেকে হরিণের দেখা মেলে পশ্চিম সুন্দরবনে

প্রকাশ : ০৯ জুন ২০১৯, ০০:০০

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে পশ্চিম সুন্দরবন সাতক্ষীরা রেঞ্জের কলাগাছিয়া এলাকায় পর্যটকদের ভিড় বেড়েছে। সুন্দরবনকে একনজর দেখার জন্য দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভিড় করছে প্রচুর পর্যটক। আবহাওয়া বৈরী না হলে পর্যটকদের মাত্রা আরও বাড়তো বলে অভিমত বন বিভাগ কর্মকর্তাদের।

সুন্দরবন থেকে ফিরে আব্দুল্লাহ আল মাহফুজ বলেন, এ বছর ঈদের দিন থেকেই আবহাওয়া বৈরী। তবুও ভ্রমণ পিপাসু মানুষরা থেমে নেই। বৃষ্টি উপেক্ষা করেই তারা তাদের প্রিয় স্থানগুলোতে ঘুরছেন। এছাড়া ঈদের ছুটিতে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে এসেছেন অনেকে।

শ্যামনগর উপজেলার কলাগাছিয়া বন ফাঁড়ির কর্মকর্তা নুর ইসলাম জানান, প্রতিদিন প্রচুর পর্যটক সুন্দরবনের মধ্যে প্রবেশ করছে। প্রতিদিন ৪০-৫০ টি বোর্ট প্রবেশ করছে সুন্দরবনে কলাগাছিয়া এলাকা থেকে। প্রতিটি সরকার নিবন্ধিত বোর্টে প্রতিবার সুন্দরবনে প্রবেশ করলে সরকার ৩১৮ টাকা করে রাজস্ব পায়। এছাড়া প্রতিজন পর্যটককে রাজস্ব দিতে হয় ২৩ টাকা করে। প্রতিটি বোর্টে ৩০-৫০ জন করে পর্যটক উঠতে পারেন।

তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার বৈরী আবহাওয়ার মধ্য দিয়েই সুন্দরবনে বোর্ট প্রবেশ করেছে ৩০-৩৫ টি। শুক্রবার প্রবেশ করেছে ৪০-৪৫ টি। শনিবার প্রবেশ করেছে ৩৮-৪০ টি। সব মিলিয়ে বৈরী আবহাওয়ার মধ্য দিয়েও সুন্দরবন কলাগাছিয়া এলাকায় পর্যটকদের প্রচুর ভিড়। সরকারেরও রাজস্ব অর্জিত হচ্ছে।

পর্যটকদের আকর্ষণের কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন, বনের মধ্যে প্রবেশ করলেই বানর ও হরিণ খুব কাছ থেকে দেখা যায়। অনেক সময় হরিণ মানুষের সন্নিকটে চলে আসে। সেকারণেই মূলত কলাগাছিয়া এলাকা দিয়ে সুন্দরবনে বেশী প্রবেশ করেন পর্যটকরা। আবহাওয়া বৈরী না হলে পর্যটকদের পরিমাণ আরও বাড়তো।

 

"