আমতলীতে বেড়েছে নিত্যপণ্যের দাম

প্রকাশ : ১১ মে ২০১৯, ০০:০০

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি

বরগুনার আমতলী উপজেলার সবকটি হাট-বাজারে কাঁচামালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়েছে। দাম বেড়ে যাওয়ায় বাজারে জিনিসপত্র কিনতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে নিন্ম আয়ের ক্রেতাদের। চাল, ডাল, ছোলা, রসুন, পেঁয়াজ, আলু থেকে শুরু করে সব ধরনের পণ্যই বিক্রি হচ্ছে কেজিতে ১০-২৫ টাকা বেশি দরে। কোনো কোনো পণ্যের ক্ষেত্রে দাম বেড়েছে তার চেয়েও বেশি। রমাজানের দু-তিন দিনের মাথায় বাজারের লাগামহীন উর্ধ্বগতিতে ক্রেতাদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। পৌরশহরের কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, বাজারে প্রতি কেজি বেগুন ৮০ টাকা, পেঁপে ৩৫ টাকা, করলা ৮০ টাকা, শসা ৬০ টাকা, আলু ১৮ টাকা, পেঁয়াজ ২৮ টাকা, ঢেঁড়স ৩০ টাকা, কাঁচামরিচ ১২০ টাকা কেজি ও কাঁচা কলা ৩০ টাকা হালি দরে বিক্রি হচ্ছে। আমতলীতে চালের দাম গত দু-তিন দিনের ব্যবধানে কেজিতে অন্তত দুই টাকা হারে বেড়েছে।

পৌর শহরের রাকিব স্টোরের মালিক নাসির মিয়া জানান, রোজার আগের দিন ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় ছিল দোকানে। ধর্মপ্রান মুসলমানরা অন্তত এক সপ্তাহের রোজার বাজার করে নিয়ে গেছেন। তবে খেটে খাওয়া ও সাধারণ মানুষ নিত্যপণ্যের লাগামহীন দামে অসহায় বোধ করছেন। আমতলী প্রেস ক্লাব সভাপতি সাংবাদিক দেওয়ান মস্তফা কবির বলেন, প্রতি বছর রমজান আসলেই নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম ক্রেতাদের নাগালের বাইরে চলে যায়। এতে করে সবচেয়ে বেশি কষ্ট পোহাতে হয় আমাদের মত মধ্য বিত্তদের।

ক্রেতাদের অভিযোগ, বাজারে মনিটারিং ব্যবস্থা না থাকার কারণে ব্যবসায়ীরা ইচ্ছামতো জিনিসের দাম বাড়িয়ে চলেছে। তাছাড়া বাজারে মূল্য তালিকার চার্ট না থাকার ফলে যা হওয়ার তাই হচ্ছে। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কমলেশ মজুমদার মুঠোফোনে জানান, বাজার মনিটরিং করা হচ্ছে। গত দুই দিনে বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২৪ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

"