রাজৈরে ইউএনওর হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে বন্ধ

প্রকাশ | ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

রাজৈর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি

মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলায় ইউএনও সোহান নাসরিনের হস্তক্ষেপে একই দিনে ৪টি বাল্য বিবাহ বন্ধ হয়েছে। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে দুই কনের অভিভাবককে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড দেওয়া হয়েছে। অন্য দুই কনের বাবা মুচলেখা দিয়ে রেহাই পেয়েছেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত বুধবার বিকালে এ অভিযান পরিচালনা করে উপজেলা প্রশাসন। রাজৈর ইউএনও অফিস সুত্র জানায়, মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলা ইউএনও সোহান নাসরিন পাইকপাড়া ইউনিয়নের নয়াকন্দি কাশিমপুর গ্রামের ফারুক খানের মেয়ে এবং স্থানীয় মাদরাসার নবম শ্রেণির ছাত্রী স্মৃতির বিয়ের খবর পেয়ে অভিযান চালায়। মেয়ের বিবাহ বন্ধ রাখবে মর্মে মুচলেখা রেখে বাবাকে ছেড়ে দেন। অপরদিকে উপজেলার ইশিবপুর গ্রামের মজিবর কারিকরের কন্যা ও ইশিবপুর উচ্চবিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী লিজা আক্তারের বিবাহের দিন ধার্য ছিল। সেটিও বন্ধ করে মুচলেখা নেন ইউএনও। অপরদিকে, উপজেলার আমগ্রাম ইউনিয়নের মনি মোহন বৈদ্যর কনে নবম শ্রেণির ছাত্রী তিথীর বিবাহের আয়োজন চলছিল। সেখানেও হাজির হন ইউএনও। একই গ্রামের হরিপদ ওঝার কনে দশম শ্রেণির ছাত্রী দোলা ওঝার বিবাহের প্রস্ততির খবর পেয়ে ইউএনও সেখানেও হাজির হয়ে কনে ও কনের বাবাকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে উভয় অভিভাবককে ৫০০০ টাকা করে মোট ১০ হাজার টাকার জরিমানা আদায় ও মুচলেখা নেন।

"