পদোন্নতি পেলেও পদবঞ্চিত ফরিদপুরের সার্ভেয়াররা

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

ফরিদপুর প্রতিনিধি

সরকারী প্রজ্ঞাপণ অনুযায়ী অন্যান্য দপ্তরের সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি হলেও দীর্ঘদিন ধরে পদোন্নতি বঞ্চিত রয়েছেন ফরিপুর জেলা পরিষদে কর্মরত সার্ভেয়ারগণ। ফলে দেশের বিভিন্ন জেলা পরিষদের কর্মরত সার্ভেয়ারদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জেলা পরিষদে কর্মরত সার্ভেয়ারেরা জানান, জেলা পরিষদের ১৯৯০ ম্যানুয়ালে সার্ভেয়ার পদটি এলজিইডি হতে প্রেষনে থাকলেও ২০০৬ সালের ১৬ জানুয়ারি প্রকাশিত প্রজ্ঞাপনে উক্ত পদে শতভাগ সরাসরি নিয়োগের জন্য সরকার অনুমোদন দেয়। প্রজ্ঞাপনে অনুমোদিত সার্ভে ইনষ্টিটিউট হতে চার বছর মেয়াদী ডিপ্লোমাধারীদের কথা বলা হয়। কিন্তু সার্ভেয়ারদের পদোন্নতির বিষয়ে কোন বিধান রাখা হয়নি। ফলে এলজিইডি, পৌর সভাসহ অন্যান্য দপ্তর গুলোতে সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি পেয়ে উপ-সহকারী প্রকৌশলী হতে পারলেও কেবল মাত্র বঞ্চিত রয়েছেন জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারগণ।

জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি না থাকায় জেলা পরিষদের উপ-সহকারী প্রকৌশলীর পদটি এলজিইডি থেকে প্রেষনে এনে কাজ চালানো হচ্ছে। অথচ জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারদের পদোন্নতি দিলে তারাই পদোন্নতি পেয়ে উপ-সহকারী প্রকৌশলী হতে পারতেন। অন্যান্য দপ্তরের সার্ভেয়ানগণ পদোন্নতি পেয়ে উপ-সহকারী প্রকৌশলী হতে পারলে জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারগণ একই যোগ্যতা থাকা সত্বেও কেন পদোন্নতি পাবেন না এমন প্রশ্ন এখন জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারদের।

সার্ভেয়ার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার ব্যতিত বার্তাবাহক থেকে প্রধান প্রকৌশলী পদে পদোন্নতির বিধান আছে। এটি কোন ভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। তিনি আরো বলেন, পৌর সভায় চাকুরীরত একজন সার্ভেয়ার ৫ বছরের বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকলে তিনি উপ-সহকারী প্রকৌশলী পদে পদোন্নতি যোগ্য হচ্ছেন। অথচ একই যোগ্যতা থাকার পরও জেলা পরিষদের সার্ভেয়ারগণ দীর্ঘদিন ধরে বঞ্চিত রয়েছেন। জেলা পরিষদের একেক জন জনসার্ভেয়ার ১২-১৫ বছর ধরে উক্ত পদে থাকলেও তাদের কোন পদোন্নতি নেই। এ বিষয়ে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন জেলা পরিষদে চাকুরীরত সার্ভেয়ারগণ।

 

"